ঢাকা, শনিবার 14 January 2017, ১ মাঘ ১৪২৩, ১৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রতিপক্ষের হামলায় আহত মাদরাসা শিক্ষকের মৃত্যু

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা : মঠবাড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত মাদরাসা শিক্ষক মাওলানা ফরিদ উদ্দিন (৭৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বুধবার দুপুরে ঢাকার ধানমন্ডি জেনারেল হাসপাতালে মারা গেছেন।
নিহত ফরিদ উদ্দিন উপজেলার বেতমোর গ্রামের মৃত ছবদার আলী সিকদারের পুত্র ও বেতমোর আশরাফুল উলুম সিনিয়র মাদরাসার অবসরপ্রাপ্ত ভাইস প্রিন্সিপাল ছিলেন।
ফরিদ উদ্দিনের ছেলে শহিদুল ইসলাম জানান, বেতমোর গ্রামের হাবিবুর রহমানের সাথে আমার বাবার  দীর্ঘদিন  ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।
এ ঘটনার জের ধরে সোমবার রাতে আঃ গণি হাওলাদার  মসজিদ থেকে এশার নামায শেষে বাড়ি ফেরার পথে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা হাবিবুর রহমান ও তার পুত্র নাসির উদ্দিন তাদের দলবলসহ তার বাবার মাথা ও শরীরে এলোপাথাড়িভাবে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে পালিয়ে যায়।
পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে অবস্থার অবনতি ঘটলে ওই রাতেই বরিশাল শেবাচিমে পাঠানো হয়।
অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় বরিশাল শেবাচিমের চিকিৎসকরা মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় প্রেরণ করেন। গতকাল বুধবার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার ধানমন্ডি জেনারেল হাসপাতালে তিনি মারা যান।
পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিহতের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রতিপক্ষের হামলায় আহত শিক্ষকের মারা যাওয়ার ঘটনাটি মৌখিকভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ