ঢাকা, শনিবার 14 January 2017, ১ মাঘ ১৪২৩, ১৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বঙ্গোপসাগরে এক হাজার মেট্রিক টন কয়লাবাহী এমভি আইচগাতি কার্গো ডুবি

খুলনা অফিস : বাংলাদেশ জলসীমায় সুন্দরবন উপকূলের বঙ্গোপসাগরের ১২ নম্বর ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় (হিরনপয়েন্টের অদূরে) এক হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ডুবে গেছে ‘এমভি আইচগাতি’ নামের একটি কার্গো জাহাজ। শুক্রবার সকাল ১০টায় ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় অবস্থানরত মাদার ভ্যাসেল থেকে কয়লা বোঝাই করে মংলা বন্দরের ফেরার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ওই কার্গোতে থাকা সকল নাবিক ও ক্রুসহ ১২ জনকে সাগরে ভাসতে দেখে পাশ দিয়ে যাওয়া অপর একটি জাহাজ থেকে তাদের উদ্ধার করে মংলায় নিয়ে আসা হয়েছে।
মাদার ভ্যাসেলে শ্রমিক নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান স্টীভিডরস মেসার্স নূরু এন্ড সন্স’র স্বত্বাধিকারী এইচ এম দুলাল জানান, বঙ্গোপসাগরের ফেয়ার ওয়ের ১২ নং লাল বয়ায় এলাকায় অবস্থানরত মাদার ভ্যাসেল বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজ ‘এমভি লেডীমেরি’ থেকে বৃহস্পতিবার রাতে কয়লা বোঝাই করা হয় কার্গো জাহাজ ‘এমভি আইচগাতি’তে। শুক্রবার ভোর রাতে কার্গো জাহাজটি মংলা বন্দরের উদ্দেশ্যে ফেরার পথে ঘনকুয়াশা ও উত্তাল ঢেউয়ে পড়ে দিক হারিয়ে ডুব চরে আটকে যায়। এ সময় তলা ফেটে ডুবে যায় কয়লা বোঝাই কার্গো জাহাজটি। এরপর কার্গো জাহাজের মাস্টারসহ নাবিকরা সমুদ্রে ভাসতে থাকলে একই নৌ পথে আসা অপর একটি জাহাজ নাবিকদের উদ্ধার করে।
মাদার ভ্যাসেলের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এইচ টি বদিউল আলম জানান, ডুবে যাওয়া কয়লার মালিক ও আমদানি কারক যশোরের নওয়াপাড়া ট্রের্ডাস। আর ডুবো যাওয়া কার্গো জাহাজটির মালিক খুলনাস্থ নৌ পরিবহন মালিক সমিতির মেম্বর ফারুক কাজী।
মংলা বন্দরের হারবার বিভাগ জানায়, হিরনপয়েন্ট ও ফেয়ারওয়ের ১২নং লাল বয়া এলাকায় কয়লা বোঝাই কার্গো জাহাজটি ডুবে আছে। যা বন্দরের মূল চ্যানেল থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে। এ কারণে মংলা সমুদ্র বন্দরে পণ্যবাহী বাণিজ্যিক জাহাজ আগমন ও নির্গমনে কোন সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা নেই।
মংলা কোস্টগার্ডের অপারেশন কর্মকর্তা লে. রাহাতুজ্জামান জানান, কার্গো ডুবির খবর পেয়ে কোস্টগার্ডের দুটি দল শুক্রবার দুপুরে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। তবে ঘটনাস্থল মংলা বন্দর থেকে প্রায় একশ’ কিলোমিটার দূরে। সমুদ্রের মধ্যে এবং দূর্গম যাতায়াত ব্যবস্থার কারণে উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হওয়ার আশংকা করছেন তিনি। তবে কার্গোটিতে সঠিক কতজন নাবিক ছিল কিংবা কেউ নিখোঁজ আছে কিনা তাও তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি। তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থলে মোবাইল নেটওয়ার্ক নেই । যে কারণে কোস্টগার্ডের অপারেশন দল ফিরে না আসা পর্যন্ত বিস্তারিত জানানো সম্ভব নয়।
মংলা কোষ্টগার্ডের মিডিয়া উইং জানায়, ইন্দোনেশিয়ার পতাকাবাহী মাদার ভেসেল ‘এমভি লেডী মেরি’ আমদানিকারকদের কয়লা বোঝাই করে গত ২৪ ডিসেম্বর মংলা বন্দরের আউটার এ্যাংকরেজে আসে। গত ২ দিন আগে এই মাদার ভেসেলটি থেকে বঙ্গোসাগরে মংলা বন্দর চ্যানেলের ১২ বয়ার কাছে লাইটারেজ কার্গোতে কয়লা খালাসের কাজ শুরু করে। তিনি বলেন, কার্গোটিতে থাকা সকল নাবিক ও ক্রুসহ ১২ জনকে হিরনপয়েন্টের সুন্দরবন উপকূলে বঙ্গোপসাগরে ভাসতে দেখে পাশ দিয়ে যাওয়া ‘এমভি বসুন্ধরা- ৩৭’ জাহাজ তাদের উদ্ধার করে মংলায় নিয়ে আসে। কার্গোটির সব নাবিক ও ক্রু সুস্থ রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ