ঢাকা, রোববার 15 January 2017, ২ মাঘ ১৪২৩, ১৬ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সড়ক দুর্ঘটনায় ছয় জেলায় ১৪ জন নিহত ॥ আহত ৮২

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের ছয় জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত ও ৮২ জন আহত হয়েছেন। গত শুক্রবার গভীর রাত থেকে গতকাল শনিবার সকাল পর্যন্ত এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে কুমিল্লায় ছয়জন, নওগাঁয় তিনজন, আশুলিয়ায় দুইজন, জয়পুরহাটে দুইজন ও নেত্রকোনায় একজন নিহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ৮২ জন, তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
কুমিল্লা : কুমিল্লায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে পড়ে অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে ১৮ জন। গতকাল শনিবার ভোর পাঁচটার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ঝিংলাতলী ব্রিজের কাছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবদুল আউয়াল জানান, নীলফামারীর ডিমলা থেকে ছেড়ে আসা কুমিল্লাগামী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের খালে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে ছয়জন নিহত হয়। আহত হয় ১৮ জন। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিটের সহযোগিতায় হাইওয়ে পুলিশ গাড়িটি উদ্ধার করে। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত তিন জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
নওগা : নওগাঁয় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে লক্ষণ চন্দ্রের (৩৫) অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ভটভটি চড়ে নওগাঁ শহরে যাবার সময় উপজেলার রশুলপুর মোড়ে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রলির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই বিশ্বজিৎ ও জাহাঙ্গীরের মৃত্যু হয় এবং লক্ষণসহ আরো দুজন গুরুতর আহত হন। মৃত বিশ্বজিৎ আত্রাই উপজেলার রশুলপুর গ্রামের অনাত চন্দ্রের ছেলে ও জাহাঙ্গীর আলম একই গ্রামের আজাদ হোসেনের ছেলে।
আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুদুজ্জো জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধান করে থানায় আনা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। আহত লক্ষণ চন্দ্রের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, জেলার মহাদেবপুর উপজেলার নওহাটা বাজার থেকে নাজমুল হক নামে এক ভটভটি চালক ভটভটি নিয়ে নওগাঁ শহরে আসছিলেন। সকাল ১১ টার দেকে হাঁপানিয়া বাজারে এলে ভটভটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ওই চালক ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।
আশুলিয়া : আশুলিয়ায় ট্রাকের ধাক্কায় বাবা আজাদ ও মেয়ে মরিয়ম (৩) নিহত হয়েছে । এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শিশুর মা আরজু বেগম। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবু তাহের জানান, সকালে মা-বাবার সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে নবীনগর যাচ্ছিল মরিয়ম। আশুলিয়া থানার এসআই রহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালেএকটি ব্যাটারী চালিত অটোরিকশায় করে মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় থানার আজাদ তার স্ত্রী আরজু ৩ বছরের শিশু মরিয়মকে নিয়ে নবিনগর যা”িছল। অটোটি নিরিবিলি এলাকায় পৌছলে পিছন দিক থেকে মাটি ভর্তী একটি ট্রাক অটো রিকশাটিকে ধাক্কা দেয়। এসময় অটোরিকশাটিতে থাকা তিন জনই মহাসড়কে ছিটকে পরে। স্থানীয়রা আহতদেরকে পার্শ্ববর্তী গণ স্বাস্থ্য হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার, মরিয়মকে নিহত বলে ঘোষনা করে। পরে বাবা ও মাকে পঙ্গু হাসপাতালে নেয়ার পথে তাদের অবস্থা আরও অবনতি হলে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নেয়ার পর বাবাও নিহত হন।
জয়পুরহাট : জয়পুরহাট-বগুড়া মহাসড়কের কালাই উপজেলায় যাত্রীবাহী দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছে। এ সময় অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় কালাই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার বাঁশের ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি। কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিশ্বজিত বর্মন এ ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
কালাই থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, রাতে কালাইয়ের বাঁশের ব্রিজ এলাকায় ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের সঙ্গে জয়পুরহাটগামী এইচ আর এন্টারপ্রাইজ নামের একটি লোকাল বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই লোকাল বাসের দুই যাত্রী নিহত হয়। আহত হয় অন্তত ৫০ জন যাত্রী। কালাই উপজেলা চেয়ারম্যান মিনফুজুর রহমান মিলন জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহত এক নারীর লাশ তাদের স্বজনরা নিয়ে গেছে। অন্য এক পুরুষের লাশ পুলিশ উদ্ধার করেছে। কালাই থানার ওসি (তদন্ত) বিশ্বজিত বর্মন জানান, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একজনের লাশ উদ্ধার করেছে। তবে দুর্ঘটনায় অপর এক নারীর লাশ নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি তাদের জানা নেই।
নেত্রকোনা: নেত্রকোনার বাইড়াউড়ায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান (৪৫) নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে নেত্রকোনা-কেন্দুয়া সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হাবিবুর আটপাড়া উপজেলার তেলীগাতি ইউনিয়নের কাছারপুর গ্রামের মৃত মমতাজ উদ্দিন ফকিরের ছেলে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় চালক কেন্দুয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক আনিছুর রহমান (৪২) আহত হয়েছেন। তাকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. ছানোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
মেহেরপুর : মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার পোঁড়াপাড়া-যুগিন্দা সড়কে স্যালোইঞ্জিন চালিত আলগামন উল্টে ১০ জন নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়েছেন। গতকাল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহত বাশিদুল ইসলাম জানান, যুগিন্দা থেকে আলগামন করে ১৬ জন নির্মাণ শ্রমিক গাংনী যাচ্ছিলেন। যুগিন্দা মোড় নামক স্থানে বিপরীত থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলকে সাইড দিতে গিয়ে আলগামনটি উল্টে পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে যায়। এ সময় সকল যাত্রীই আহত হন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ