ঢাকা, সোমবার 16 January 2017, ৩ মাঘ ১৪২৩, ১৭ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এখনও ভালো করার আশা ছাড়েননি তাসকিন

স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রথম টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে বাংলাদেশ ১২২ রানে এগিয়ে আছে। আজ শেষ দিনে ৬৬ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামবে টাইগাররা। তবে গতকাল শেষ দিকে দ্রুত উইকেট পড়লেও আশা ছাড়েননি তাসকিন। এই টেস্টে ভালো কিছু করার আশা করছেন তাসকিন আহমেদ। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে তাসকিন বলেন, ‘এই পরিস্থিতিটা আমাদের জন্যে খুবই কঠিন। কারণ দিনের শেষ মুহূর্তে আমরা কয়েকটি উইকেট হারিয়েছি। এটা আমাদের জন্যে মোটেই ভালো কিছু নয়। আমরা আশা ছেড়ে দেইনি। আগামীকাল (আজ) নতুন একটা দিন হবে। আশা করছি আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো কিছু করবেন।’ মুশফিকের চোটের পর ইমরুলের চোট কোনও প্রভাব ফেলেছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তাসকিন বলেন, ‘ইমরুল ভাইয়ের চোটটা আমাদের মনে খুব দাগ কেটেছে। দিনের শেষ বলে মিরাজ আউট হওয়াতেও সবাই খুব কষ্ট পেয়েছে। কিন্তু কাল একটি নতুন দিন। নতুন দিনে নতুন চিন্তা নিয়েই আমরা মাঠে আসবো। আমাদের দলে চমৎকার একটি পারিবারিক পরিবেশ আছে। যে কোনও বিপর্যয়ে একজন আরেকজনের পাশে গিয়ে দাঁড়ায়। এরজন্যে এই মানসিক পরিস্থিতি বেশিক্ষণ লম্বা হবে না আশা করছি।’ তাহলে এই অবস্থায় জয়ের চেষ্টা না করে পরাজয় এড়ানোর চেষ্টা করবে বাংলাদেশ? এমন প্রশ্নে তাসকিনের উত্তর, ‘আসলে বিষয়টি সকালে আমাদের ব্যাটসম্যানদের ওপর নির্ভর করবে। উইকেট এখন খুবই ফ্ল্যাট উইকেট। আমাদের ব্যাটসম্যানরা যদি উইকেটে সেট হয়ে যেতে পারেন তাদের পক্ষে অনেক কিছুই করা সম্ভব।’ এই অবস্থায় বাংলাদেশ দল চিন্তিত কিনা জানতে চাইলে তাসকিন বলেন, ‘কিছুটা চিন্তিত। আমাদের কমপক্ষে তিনশ রানের বড় টার্গেট গড়ার চেষ্টা থাকবে। উইকেটটি এখন ব্যাটিং উইকেট। আমরা প্রথম ইনিংসে ভালো করেছি। ৫৯৫ রান করে ইনিংস ঘোষণা করেছি। স্বাগতিকরাও ভালো ব্যাটিং করে ৫৫০-এর মতো রান করেছে। এখন আমাদের ব্যাটসম্যানদের সতর্কভাবে শেস দিনের সকালটা শুরু করতে হবে। কারণ কিউইদের বোলিং আক্রমণও যথেষ্ট মেধাবী এবং শক্তিশালী।’ চতুর্থ দিনের শেষ বিকালটায় বাংলাদেশ দল এলোমেলো হয়ে গেলো কিনা এমন এক প্রশ্নে তাসকিন বলেন, ‘দিনের শেষে কয়েকটা উইকেট যাওয়াটা আমাদের জন্যে সমস্যা হয়ে গেলো। আশা করি শেষ দিনে আমরা ভালো ব্যাটিং করবো। তবে আমাদের শুরুটা কিন্তু দারুণ হয়েছিল। ইমরুল ভাই খুব ভালো ব্যাটিং করছিলেন। দুর্ভাগ্যক্রমে তিনি চোটে পড়ায় আমাদের চমৎকার শুরুটায় গড়বড় হয়ে গেলো। তার তাড়াতাড়ি ফিরে আসার জন্যে দোয়া করবো।’ বদলি কিপার হিসেবে টেস্টে ইতিহাস গড়েছেন ইমরুল কায়েস। ইনিংসে নিয়েছেন সর্বাধিক ক্যাচ।সেই ইমরুলের কিপিং সম্পর্কে তাসকিন বলেন, ‘ইমরুল ভাই অসাধারণ কিপিং করেছেন। পাঁচটি ক্যাচ ধরেছেন। তিনি এতটা ভালো করবেন তা আমরা আশা করিনি।’ অভিষেক টেস্টে কেন উইলিয়ামসনের উইকেট পাওয়াতে দারুণ খুশি তাসকিন। তাসকিন বলেন, ‘তার ব্যাটিং’এর বিশেষ কিছু শক্তিশালী জোন আছে। সে জোনগুলো এড়িয়ে তার দুর্বল জোনগুলোতে বল করেই সাফল্য  পেয়েছি। তবে উইলিয়ামসনের মতো এই মুহূর্তের একজন বিশ্বমানের শক্তিশালী ব্যাটসম্যানের উইকেট পাওয়াকে সৌভাগ্যের মনে করছি।’ বোলিংয়ের অভিজ্ঞতাকে চ্যালেঞ্জিং হিসেবে উল্লেখ করেছেন তাসকিন, ‘আসলে এটি খুব চ্যালেঞ্জিং। হাতে বেশ টান পড়ে। কিন্তু আমি খুব উপভোগ করছি। এটা আমার নতুন একটি অভিজ্ঞতা ছিল। এতদিন টিভিতে টেস্ট খেলা দেখতাম। এখন মাঠে খেলছি। বোলারদের এক্ষেত্রে অনেক ধৈর্যের একটি ব্যাপার আছে। ধারাবাহিক বল করতে হলে শারীরিকভাবে ফিট থাকতে হয়। সব মিলিয়ে বিষয়টা অত সহজ না।’ নিজের বোলিং করার অভিজ্ঞতা নিয়ে তাসকিন বলেন, ‘আমি উনিশ ওভারের মতো বল করেছি। একটা উইকেট পেয়েছি। আরও হয়তো পেতে পারতাম। কিন্তু উইকেট পাওয়ার একটা ভাগ্য থাকে। ক্যাচ ড্রপ হতে পারে। চার হয়ে যেতে পারে। টিমের সবাই আমার প্রশংসা করেছেন। আশা করছি আগামীতে আরও ভালো করবো।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ