ঢাকা, বুধবার 18 January 2017, ৫ মাঘ ১৪২৩, ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার কার্যকারিতা নিয়ে শঙ্কায় বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার রায়ে আপাতত সন্তুষ্ট হলেও এর কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে বিএনপি। গতকাল মঙ্গলবার দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ শঙ্কার কথা জানান বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। তিনি বলেন, উচ্চ আদালতের রায় এবং রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার যে বিষয়টি আছে সেখানে কী হবে তা নিয়ে তার শঙ্কা থেকেই যায়। সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রায়ের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে আলাল বলেন, নারায়ণগঞ্জের যারা এই ঘটনায় ভুক্তভোগী তারা স্বস্তি পেয়েছেন। কিন্তু দেশে কোনো আইন নেই। কারণ আইনের শাসন যেটা আছে তার মধ্যে আইনকে যেভাবে যখন খুশি মনমতো সাজানো। আর শাসন যেটা আছে সেটা হচ্ছে বিএনপিসহ প্রতিবাদী কণ্ঠকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়া।

আলাল বলেন, সাত খুন মামলার রায়ে আপাতত আমরা স্তস্তি পেয়েছি। কিন্তু উচ্চ আদালতে কী রায় হয় এবং রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার যে বিষয়টি আছে তখন কী হয় তা নিয়ে জনগণের মনে শঙ্কা আছে। কারণ অতীতে ২২ জন ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীকে মওকুফ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। এটাই ছিল সবচেয়ে বড়, সবচেয়ে বেশি রায় মওকুফের দৃষ্টান্ত।

 মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, যেহেতু নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ২৬ জনের মধ্যে ১২ জনই র‌্যাবের, এতে করে তারা কোনো ধরনের পার পেয়ে যায় কিনা আমরা তা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জসহ পুরো দেশের জনগণও শংকায় রয়েছে। তাই আমরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানাবো সরকার যেন রায় কার্যকর বিষয়ে সতর্ক থাকে।

নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত মেনে নেবে আওয়ামী লীগ, তবে সংবিধানের বাইরে কিছু মানবে না- ‘ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের এমন বক্তব্যের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘সংবিধানের দোহাই দিয়ে জনমতের বাইরে গিয়ে কিছু করলে জনগণ তা মানবে না।

কর্মসূচি দিয়ে বিএনপি নেতারা হিন্দি সিরিয়াল দেখে- সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন আলাল। তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেব একজন ভাষাবিদ। সুন্দর সুন্দর করে কথা বলেন।এর আগে তিনি বঙ্গভবনের গ্যাস, বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেয়ার কথা বলছিলেন। আর এখন বলছেন, বিএনপি নেতারা হিন্দি সিরিয়াল দেখেন। এর থেকে আমরা ধারণা করতে পারি যে, তিনি ওইসব নেতার সঙ্গে বসে সিরিয়াল দেখেন। না হলে এটা অসাড় বক্তব্য বাস্তবতার সঙ্গে এর কোনো মিল নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ