ঢাকা, বুধবার 16 October 2019, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

টেস্টে হোয়াইটওয়াশের পরে ঘুড়ে দাঁড়ানোর প্রত্যয় শ্রীলংকার

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : টেস্ট সিরিজের বাজে অভিজ্ঞতা থেকে বেরিয়ে এসে সীমিত ওভারের সিরিজে কিছু করে দেখানোর প্রত্যয় এখন শ্রীলংকার সামনে। শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া তিন ম্যাচের টোয়েন্টি২০ সিরিজে অন্তত দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নিজেদের প্রমান করতে চায় লংকানরা। 

পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে স্বাগতিকদের বিপক্ষে টি২০ সিরিজেই এগিয়ে থাকতে চায় সফরকারী শ্রীলংকা। আর এতে আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে অনভিজ্ঞ প্রোটিয়া স্কোয়াড। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হবার স্মৃতি অধিনায়ক হিসেবে এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের অন্যতম বাজে অভিজ্ঞতা। আর তাই টি২০ সিরিজ শুরুর প্রাক্কালে সংবাদ সম্মেলনে ম্যাথুজ বলেছেন, ‘আশা করছি আমরা নতুনভাবে শুরু করতে পারবো। টি২০ দলে আমাদের কয়েকজন নতুন খেলোয়াড় রয়েছে যাদের নিয়ে আমরা সত্যিই আশাবাদী। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে এখনো আমাদের অনেক দুর যেতে হবে। সে কারনে শুরু থেকেই আমাদের সামনে থাকতে হবে। 

তিনটি টেস্টেই দক্ষিণ আফ্রিকার পেসারদের জন্য সহায়ক উইকেট তৈরী করা হয়েছিল। কিন্তু শ্রীলংকা এখনো ব্যাটিং সহায়ক উইকেটের খোঁজে রয়েছে। সেঞ্চুরিয়ানের সুপার স্পোর্ট পার্কে সেই ধরনের উইকেটের প্রত্যাশা করছে লংকানরা। তবে একদিক থেকে শ্রীলংকান ব্যাটসম্যানরা স্বস্তিতে থাকতেই পারে। কারন টি২০তে তাদের মোকাবেলা করতে হচ্ছে না টেস্টের দুই তারকা বোলার কাগিসো রাবাদা ও ভারনন ফিলানডারকে। একমাত্র টেস্ট খেলোয়াড় হিসেবে প্রোটিয়া টি২০ দলে রয়েছেন বাঁহাতি পেসার ওয়েন পারনেল। এছাড়া দলে রয়েছেন পাঁচজন নতুন মুখ। টেস্ট ও টি২০’র নিয়মিত অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসকেও বিশ্রাম দেয়া হয়েছে। তার অনুপস্থিতিতে ফারহান বেহার্দিনকে অধিনায়কত্ব দেয়া হয়েছে। 

ডু প্লেসিস বলেছেন, আমি বুঝতে পারছি সমর্থকরা যেকোন ফর্মেটেই শক্তিশারী প্রোটিয়া দল দেখতে চায়। বিন্তু আগামী ছয় থেকে আট মাসে যে ধরনের ক্রিকেট আমাদের সামনে অপেক্ষা করছে তাতে প্রতিটি ফর্মেটেই পর্যাপ্ত খেলোয়াড় প্রয়োজন। তারই অংশ হিসেবে দলে নতুনদের সুযোগ দেয়া হয়েছে। টেস্টের মতই আমরা সব ফর্মেটকেই গুরুত্ব দেবার চেষ্টা করছি। জুনে ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিকে সামনে রেখে দক্ষিণ আফ্রিকা পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই ওয়ানডেতে নামবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন ডু প্লেসিস। 

এদিকে সাম্প্রতীক সময়ে টি২০তে শ্রীলংকার রেকর্ড খুব একটা সুখকর নয়। গত মার্চে টি২০ বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে পরাজিত করার পরে সম্প্রতী ছয়টি ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেনি লংকানরা। টেস্ট স্কোয়াডের ছয়জন সদস্য টি২০ দলে জায়গা ধরে রেখেছেন। এর মধ্যে রয়েছেন তরুন ব্যাটসম্যান কুশাল মেন্ডিস ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা। টি২০ বিশ্বকাপে শ্রীলংকাকে পরাজিত করা পরে দক্ষিণ আফ্রিকা আর কোন টি২০ ম্যাচ খেলেনি। ঐ আসরে খেলা দলটির থেকে এবারের দলে রয়েছেন বেহার্দিন, ডেভিড মিলার, ইমরান তাহির ও এ্যারন ফানগিসো। 

টি২০ স্কোয়াড 

দক্ষিণ আফ্রিকা : ফারহান বেহার্দিন (অধিনায়ক), থেওনিস ডি ব্রুইন, রেজা হেনরিকস, ইমরান তাহির, হেইনো কুন, ডেভিড মিলার, মানগালিসো মোসেলহে (উইকেটরক্ষক), লুনগি এনগিদি, ওয়েন পারনেল, ডেন পিটারসন, এ্যারন ফানগিসো, আনডিলে ফেহুলকুয়াইয়ো, জন-জন স্মাটস, এবি ডি ভিলিয়ার্স (শুধুমাত্র তৃতীয় ম্যাচের জন্য)।

শ্রীলংকা : এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস (অধিনায়ক), দিনেশ চান্ডিমাল (উইকেটরক্ষক), ধনঞ্জয় ডি সিলভা, থিকশিলা ডি সিলভা, নিরোশান ডিকওয়েলা, আসেলা গুনারতেœ, ডানুশকা গুনাথিলাকা, নুয়ান কুলাসেকারা, সুরাঙ্গা লাকমাল, কুশাল মেন্ডিস, সচিত পাথিরানা, নুয়ান প্রদীপ, সেকুগে প্রসন্ন, লক্ষ্মণ সানদাকান, ইসুরু উদানা।

সূচী : 

  • ২০ জানুয়ারি : ১ম টি২০, সেঞ্চুরিয়ান
  • ২২ জানুয়ারি : ২য় টি২০, জোহানেসবার্গ
  • ২৫ জানুয়ারি : ৩য় টি২০, কেপ টাউন
  • ২৮ জানুয়ারি : ১ম ওয়ানডে, পোর্ট এলিজাবেথ
  • ১ ফেব্রুয়ারি : ২য় ওয়ানডে, ডারবান
  • ৪ ফেব্রুয়ারি : ৩য় ওয়ানডে, জোহানেসবার্গ
  • ৭ ফেব্রুয়ারি : ৪র্থ ওয়ানডে, কেপ টাউন
  • ১০ ফেব্রুয়ারি : ৫ম ওয়ানডে, সেঞ্চুরিয়ান। সূত্র: বাসস। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ