ঢাকা, শুক্রবার 20 January 2017, ৭ মাঘ ১৪২৩, ২১ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

গুমানি নদীর ওপর ব্রিজ না থাকায় জনদুর্ভোগ

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: চলনবিলের ১৬টি প্রবাহিত নদীর মধ্যে অন্যতম গুমানি নদী। তাড়াশ উপজেলার মধ্যদিয়ে বয়ে যাওয়া গুমানি নদীর উপরে ব্রিজ না থাকায় বাশের সাঁকোর উপর দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ধামাইচ বাজারে লাখো মানুষ পারাপার হচ্ছেন। গুমানি নদীর দু’পাশে বসবাসরত লাখো মানুষ একটি ব্রিজের জন্য স্বাধীনতার পর  থেকে আশায় বুক বেঁধে তাদের দুঃখ-দুর্দশার দিকে আজ পযন্ত কেউ ফিওে তাকাইনি। শত শত বছর ধরে নিজেদের উদ্যোগে তৈরি বাঁশের সাঁকো দিয়ে তাদের যাতায়াত চলছে। তাড়াশের চলনবিল এলাকার মানুষের বর্ষার সময় চলাচলের জন্য নৌকাই এক মাত্র অবলম্বন। এই নদীতে ব্রিজ না থাকায় বর্ষা মওসুমে চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিনাতিপাত করতে হয়। নদীর দু’পারে প্রচুর পরিমাণ ধান ও সবজি উদপাদন করেন স্থানীয় কৃষকরা। কিন্তু যাতায়াত ব্যবস্থা ভাল না থাকায় ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হয়। হাজার হাজার মণ ধান ও সবজি কৃষকরা নিজ উদ্দ্যেগে বহুকষ্টে গুমানি নদীর দক্ষিণ পাড়ের বাজারগুলোতে বিক্রি করে। এখানে একটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি মাদ্রাসা ও একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত শত ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষক জনসাধারণ বাঁশের সাঁকোর উপর দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করেন।  সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় তাড়াশের ধামাইচ বাজার সংলগ্ন গুমানি নদীর দুই পাশের লোকেরা প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হন। একটু বৃষ্টি হলেই দুর্ভোগ আরো বেড়ে যায়। এ এলাকার মানুষের কাদামাটি যেন নিত্যদিনের সঙ্গী। বর্ষায় খেয়াপারের সময় নৌকা ডুবে অনেকে নিহত হয়েছে। খেয়া পারে নৌকা ডুবার আশঙ্কা বেশী থাকে। আর শীত কালে নদীর পানি কমে গিয়ে আরো বিপদ বেশি হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ