ঢাকা, শুক্রবার 20 January 2017, ৭ মাঘ ১৪২৩, ২১ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ওয়ারীতে গুলী করে টাকা ছিনতাই রাজধানীতে স্বামীকে খুন করে থানায় স্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর বাড্ডায় রিকশাচালক স্বামীকে খুন করে এক নারী থানায় আত্মসমর্পণ করেছেন। নিহত ফজল মিয়া (৫০) বাড্ডার আদর্শনগরে পাশাপাশি দুটি টিনশেড বাসায় দুই স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে থাকতেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে তার প্রথম স্ত্রী চন্দ্রা (৪০) থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেন বলে বাড্ডা থানার ওসি এম এ জলিল জানান।
পুলিশ জানায় , চন্দ্রা থানায় এসে বলেছেন, গতকাল (বুধবার) রাতে তারা ফজলের দ্বিতীয় স্ত্রীর বাসায় ছিলেন। রাতভর ঝগড়া শেষে ভোরে ফজল মিয়া ঘুমিয়ে পড়লে তিনি রান্নাঘর থেকে পাটা এনে ফজল মিয়ার মাথায় আঘাত করে। পরে ফজলের পুরুষাঙ্গ কেটে পলিথিনে মুড়িয়ে থানায় চলে আসেন।
খবর পেয়ে পুলিশ আদর্শনগরের ওই বাসা থেকে রক্তাক্ত ফজল মিয়াকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
চন্দ্রা ও ফজলের তিনটি সন্তান রয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, স্বামীকে খুন করার অভিযোগে চন্দ্রাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
পুলিশ বলছে, ফজল আরও একটি বিয়ে করেছিলেন; তার তৃতীয় স্ত্রী ভারতে থাকেন।
গুলী করে টাকা ছিনতাই : ওয়ারীতে হারুন উর রশিদ নামে এক ব্যক্তিকে গুলী করে ৬০ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা। তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে পুরান ঢাকার নবাবপুরের দিলীপের মাঠের গলিতে এ ঘটনা ঘটে।
ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া জানান , আহত হারুন উর রশিদ বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবিসি গ্রুপের পারচেজ সেকশনে কাজ করেন। তিনি উত্তর মুগদা এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন।
হারুন উর রশিদ জানান, তিনি বিকেলে চাকরির কাজে নবাবপুরে যাচ্ছিলেন। পথে নবাবপুরের দিলীপের মাঠের গলিতে তিনজন দুর্বৃত্ত পথরোধ করে তার কাছে থাকা ৬০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন ছিনতাই করে। এ সময় আহত অবস্থায় পথচারী বাবু নামে একজন তাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তিনি বর্তমানে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি রয়েছেন।
এসআই বাচ্চু মিয়া জানান, আহত হারুন উর রশিদ তার কাছে মৌখিক অভিযোগ করেছেন। তিনি সংশ্লিষ্ট থানায় এ ব্যাপারে জানাবেন।
মানবপাচার চক্রের ১৫ সদস্য গ্রেফতার : চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে পাচারের পর জিম্মি করে অর্থ আদায় করে আসছিল, এমন এক আন্তর্জাতিক চক্রের সদস্য সন্দেহে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ পাসপোর্ট, ভিসার ফটোকপি ও নগদ অর্থ জব্দ করা হয়েছে বলে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানিয়েছেন।
র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক খন্দকার গোলাম সারওয়ার জানান, “ গ্রেফতার ওই ১৫ জনের মধ্েয ১৪ জন লিবিয়ায় লোক পাঠিয়ে তাদের জিম্মি করে এবং পরে পরিবারের কাছ থেকে অর্থ আদায় করে। অন্যজন মালয়েশিয়ায় একইভাবে মানবপাচার করে।”
তাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে জানিয়ে এ র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, এই প্রতারকচক্রের শিকার এক ব্যক্তিকে ইতোমধ্েয লিবিয়া থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।
এছাড়া বুধবার অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ১০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে গোলাম সারওয়ার জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ