ঢাকা,বুধবার 14 November 2018, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

দেশ গড়তে ঐক্যের ডাক দিলেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক: আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পরই যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী ডোনাল্ড ট্রাম্প।প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার আগে ওয়াশিংটন ডিসির লিঙ্কন মেমোরিয়ালে এক কনসার্টে দেশবাসীর প্রতি ঐক্যের ডাক দিলেন তিনি।

সমর্থকদের কাছে অঙ্গীকার করলেন ঐক্যবদ্ধ যুক্তরাষ্ট্র গড়ার।এর আগে আর্লিংটনের জাতীয় সমাধিতে মার্কিন বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান  ট্রাম্প।আজ শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ওয়াশিংটন ডিসির লিংকন মেমোরিয়ালে ‘মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন! ওয়েলকাম সেলিব্রেশন’ শীর্ষক কনসার্টের  মধ‌্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্টের অভিষেকের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এই কনসার্ট ছিল জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত।

লিংকন মেমোরিয়ালের সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প বলেছেন, আমেরিকানদের জীবনে তিনি পরিবর্তন এনে দেবেন।

দুই ঘণ্টার এই আয়োজনে ট্রাম্পের পাশে ছিলেন স্ত্রী মিলানিয়া আর পরিবারের সদস‌্যরা। আরও ছিলেন অভিনেতা জন ভয়েট, গায়ক স্যাম মুর।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের রেওয়াজ অনুযায়ী, চার বছর পরপর নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জানুয়ারির ২০ তারিখ স্থানীয় সময় বেলা ১২টায় প্রধান বিচারপতির কাছে শপথ নেন। তবে অভিষেকের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় আগের দিন সকালে, লিংকন মেমোরিয়ালে কনসার্টের মধ‌্য দিয়ে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে শুরু হয় দিনব্যাপী এ কনসার্ট। ওয়াশিংটন ডিসি ফায়ার ডিপার্টমেন্টের এমারেল্ড সোসাইটি পাইপস অ্যান্ড ড্রামস, রিপাবলিকান হিন্দু কোয়ালিশন ও হাই স্কুল মার্চিং ব্যান্ড এ কনসার্টে তাতে অংশ নেয়।

শপথ নেওয়ার আগে বৃহস্পতিবার বিকালে নতুন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স আর্লিংটনের জাতীয় সমাধিতে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় বীরদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

এরপর বিকালে লিংকন মেমোরিয়ালে ‘মেইক আমেরিকা গ্রেট এগেইন! ওয়েলকাম সেলিব্রেশন কনসার্ট’ এর দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়, যেখানে ছিল শিল্পী টবি কিথ ও লি গ্রিনউডের পরিবেশনা।

কনসার্টের শেষ পর্যায়ে এসে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় ট্রাম্প বলেন, “আমরা আমাদের দেশকে ঐক্যবদ্ধ করে তুলব।

“আমরা আমাদের সব মানুষের জন্য আমেরিকাকে অসাধারণ করে তুলব, সবার জন‌্য, সবার জন‌্য...।” 

সমর্থকদের ট্রাম্প মনে করিয়ে দেন, ভোটের প্রচারের দিনগুলোতে তাদের সাফল‌্য নিয়ে অনেকেরই সংশয় ছিল। 

“তারা আমাদের অনেক কিছুই ভুলে গিয়েছিল। যে নারী আর যে পুরষদের কেউ মনে রাখেনি, আমি তাদের বলেছিলাম, তোমরা আর বিস্মৃত কেউ নও।

ট্রাম্প আমেরিকানদের জন‌্য কাজের সুযোগ সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি দেন। সামরিক বাহিনীকে আরও সমৃদ্ধ করার, সীমান্তকে আরও সুরক্ষিত করার অঙ্গীকার করেন।

“আমরা সেই সব কাজে হাত দেব, বহু দশক ধরে যা করা হয়নি। পরিবর্তন আসবে। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, পরিবর্তন আসবে।”

এর আগে দুপুরে হোয়াইট হাউজের মাত্র কয়েক ব্লক দূরে ট্রাম্প ইন্টারন‌্যাশনাল হোটেলে স্ত্রী মেলানিয়াকে নিয়ে মধ‌্যাহ্নভোজে আসেন ট্রাম্প। যাদের নিয়ে ট্রাম্প তার প্রশাসন সাজাচ্ছেন, তাদের জন‌্যই ছিল এ আয়োজন।  

আমেরিকার ভাবী ফার্স্ট লেডি সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, “আগামীকাল আমরা কাজে নামছি।”

ওই অনুষ্ঠানে ট্রাম্প বলেন, “আমাদের সঙ্গে অনেক স্মার্ট লোক আছে। আমি তোমাদের বলছি, একটি বিষয় আমি বুঝেছি, আগের যে কোনো মন্ত্রিসভার চেয়ে আমাদের আইকিউ বেশি।”

ডি.স/আ.হু

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ