ঢাকা, বুধবার 19 September 2018, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জাম্মেহ’র দেশত্যাগ, হদিস নেই কোটি ডলারের

অনলাইন ডেস্ক: গাম্বিয়ার সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া জাম্মেহ দেশত্যাগের পর দেশটির রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে এক কোটি দশ লাখ ডলারের বেশি অর্থের কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবী করেছেন দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আদামা বারো’র উপদেষ্টা মাই আহমেদ ফাত্তি। তিনি বলেছেন, আর্থিক বিশেষজ্ঞরা ক্ষতির সঠিক পরিমাণ নিরূপণের চেষ্টা করছেন।

১৯৯৪ সালে রক্তপাতহীন এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেন ইয়াহিয়া জাম্মেহ। এরপর টানা ২২ বছর দেশটি শাসন করেন তিনি। সবশেষ গত ১ ডিসেম্বরের নির্বাচনে পরাজয়ের পর ক্ষমতা ত্যাগে অস্বীকৃতি জানান ইয়াহিয়া জম্মেহ। এক পর্যায়ে সেনেগালের সেনাবাহিনীর আগ্রাসনের মুখে শনিবার তিনি গাম্বিয়া ছাড়তে বাধ্য হন। তবে দেশত্যাগের আগে একটি কানাডীয় কার্গো বিমানে বিলাসবহুল গাড়িসহ বিভিন্ন পণ্য নিয়ে যান।

পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোর আঞ্চলিক গ্রুপ ইকোওয়াস তার দেশত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ইয়াহিয়া জাম্মেহ বিমানযোগে প্রথমে গিনিতে যান। সেখান থেকে তিনি ইকুটোরিয়াল গিনিতে পৌঁছান। এখানেই তিনি নির্বাসিত জীবন কাটাবেন।

এদিকে ইয়াহিয়া জাম্মেহ’র শাসনামলে সংঘটিত মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় ট্রুথ কমিশন গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির নির্বাসিত প্রেসিডেন্ট আদামা বারো। বিবিসি’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ ঘোষণা দেন।

ট্রুথ কমিশন বলতে সাধারণভাবে আইনগতভাবে স্বীকৃত একটি কমিশনকে বুঝায় যা কাউকে অভিযুক্ত হওয়া থেকে অব্যাহতি বা দায়মুক্তি প্রদান করে। এই দায়মুক্তি এমন ব্যক্তিকে দেওয়া হয় যিনি স্বাভাবিক আইনে বিচারযোগ্য কোনও অপরাধে তার সংশ্লিষ্টতার কথা স্বেচ্ছায় প্রকাশ করেন।

বিবিসি’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের দেশে ফেরা নিয়েও কথা বলেন আদামা বারো। তিনি বলেন, আফ্রিকার আঞ্চলিক জোট 'ইকওয়াস'-এর নেতারা যখন মনে করবেন গাম্বিয়া তার জন্য নিরাপদ তখনই তিনি সেনেগাল থেকে দেশে ফিরবেন। অবশ্য এরইমধ্যে পশ্চিম আফ্রিকার সেনা সদস্যরা গাম্বিয়ার রাজধানী বান্জুলে প্রবেশ করেছে। তারা গাম্বিয়ার নির্বাসিত প্রেসিডেন্ট আদামা বারো’র দায়িত্ব গ্রহণের অপেক্ষায় রয়েছে।

গত মাসে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সেনেগালে নির্বাসিত থাকা  আদামা বারো’র কাছে পরাজিত হন ইয়াহিয়া জাম্মেহ। কিন্তু নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে ক্ষমতা ছাড়তে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এরপর রাজনৈতিক অস্থিরতার মুখে চলতি বছরের ১৯ জানুয়ারি সেনেগালের রাজধানী ডাকারে নিযুক্ত গাম্বিয়ার দূতাবাসে নিজ দেশের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন আদামা বারো। -বিবিসি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ