ঢাকা, মঙ্গলবার 24 January 2017, ১১ মাঘ ১৪২৩, ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কিশোর দম্পতির আত্মহত্যা

নওগাঁ সংবাদদাতা : নওগাঁর মান্দায় বাল্য বিয়ের শিকার এক দম্পতি বিষ খেয়ে একইসঙ্গে আত্মহত্যা করেছেন। আত্মহননকারীরা  হলেন আবু সুফিয়ান ওরফে তুফান (১৮) ও তার স্ত্রী বৃষ্টি (১৫)। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার প্রত্যন্ত পল্লী উত্তর মদনচক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। স্থানীয়রা জানান ৯ মাস আগে উত্তর মদনচক গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে তুফানের সঙ্গে নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার জিজিরপুর (চুনা পুকুরিয়া) গ্রামের মকলেছার রহমান ভোলার মেয়ে বৃষ্টির বিয়ে হয়। সস্পর্কে তারা খালাতো ভাই-বোন। বিয়ের আগে ঊভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। অপ্রাপ্ত বয়স্ক হলেও বিষয়টি জানাজানির পর পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে দেয়া হয়েছে। বিয়ের পর সুখে-শান্তিতে বসবাস করে আসছিলেন তারা। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোর্শেদ আলী মন্ডল, প্রতিবেশি হাবিবুর রহমানসহ আরো অনেকে জানান বৃহস্পতিবার সকালে সময়মত ঘুম থেকে না উঠায় তাদের ডাকাডাকি করা হয়। কোনো সাড়া না পাওয়ায় ঘরের দরজা ভেঙ্গে উদ্ধারের পর গ্যাসবড়ি (বিষের ট্যাবলেট) খাবার বিষয়টি জানাজানি হয়ে পড়ে। পরে তাদের মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে নওগাঁ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকগন। নওগাঁ হাসপাতালে অবস্থার অবনতি হওয়ায় ওই কিশোর দম্পতিকে বিকেলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে প্রথমে বৃষ্টি ও পরে তার স্বামী তুফানের মৃত্যু ঘটে। ময়না তদন্ত ছাড়াই রাতে পারিবারিক কবরস্থানে তাদের দাফন করা হয়েছে। তবে এক সঙ্গে ওই কিশোর দম্পতি কেন আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন তার কারণ পরিবারসহ স্থানীয়রা জানাতে পারেনি। নিহত তুফানের ভাবী জরিনা বিবি ও গ্রামপুলিশ আব্দুর রশিদ জানান নিহতদের বাড়ি থেকে আশপাশে ৪-৫ কিলোমিটারের মধ্যে কীটনাশক ওষুধের কোন দোকান নেই। এ কারণে আত্মহত্যার কারণ পূর্ব পরিকল্পিত বলে ধারণা করছেন তারা। এদিকে গতকাল শুক্রবার সকালে মহাদেবপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সালেহ মো. আশরাফুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি জানান ঘটনাটি খুবই স্পর্শকাতর। তবে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে কোন মন্তব্য করেননি। বিষয়টি গভীরভাবে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ