ঢাকা, রোববার 18 November 2018, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

আইএস সন্দেহে মালয়েশিয়ায় দুই বাংলাদেশি আটক

অনলাইন ডেস্ক: জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে সম্পৃক্ততার সন্দেহে দুই বাংলাদেশিসহ চারজনকে আটক করেছে মালয়েশিয়া স্পেশাল ব্রাঞ্চের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। মালয়েশিয়ার সাবাহ ও কুয়ালালামপুর থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতদের মধ্যে একজন ফিলিপিনো নাগরিক। তার বয়স ৩১ বছর। দুই বাংলাদেশির বয়স যথাক্রমে ২৭ ও ২৮ বছর। বাকি একজন মালয়েশিয়া নারী। তবে তাদের নাম ও পরিচয় জানানো হয়নি। খবর চ্যানেল নিউজএশিয়ার।

আটককৃত দুই বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় সেলসম্যান হিসেবে কর্মরত ছিলেন বলে দাবি করেছে মালয়েশীয় পত্রিকা নিউ স্ট্রেইট টাইমস। তারা আইএস কর্মী সংগ্রহের কাজ করছিলেন বলে অভিযোগ করছে পুলিশ।  বাংলাদেশি আইএস জঙ্গিদের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ রয়েছে বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়। আটক হওয়া সবার বয়স ১৭ থেকে ৩১ এর মধ্যে।

গত ১৩ তারিখ থেকে ১৯ তারিখ পর্যন্ত ধারবাহিক জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযান চালানো হয় মালয়েশিয়ায়। 

মালয়েশিয়া পুলিশের আইজি তান স্রি খালিদআবু বকর বলেন, এই অভিযানের মাধ্যমে এই জঙ্গিদের ফিলিপাইনভিত্তিক আইএস জঙ্গি ড. মাহমুদ আহমাদ ও ইসনিলন হাপিলনের সেলে যোগ দেয়া আটকাতে পারা গেছে। এই অংশটি মালয়েশিয়ার সাবাহ অঞ্চলকে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া ও দক্ষিণ এশিয়ার জঙ্গিদের এই সেলে যোগ দেয়ার ট্রানজিট হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছিল।

আইএসে যোগ দেয়ার আগে ড. মাহমুদ মালয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক ছিলেন, তার সঙ্গে আছে ফিলিপাইনের আবু সায়াফ জঙ্গির একটি অংশের নেতৃত্বে থাকা ইসনিলন। তারা আইএসের প্রতি আনুগত্য জানিয়েছে। ড. মাহমুদ ছাড়াও ফিলিপাইনের মিন্দানাওভিত্তিক জঙ্গি সেলে আরো দুই মালয়েশেীয় আছে।

জানুয়ারির ১৩ তারিখ সাবাহ কোটা কিনাবালু থেকে ৩১ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়, ফিলিপাইনি সেই ব্যক্তি ঘড়ি বিক্রেতা হিসেবে কাজ করছিল। ড. মাহমুদের নির্দেশনায় ওই ব্যক্তি মালয়েশেীয়, ইন্দোনেশিয়ান, বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গাদের মধ্য থেকে জঙ্গি নিয়োগের পরে ফিলিপাইনে পাঠানোর পরামর্শ দিয়েছিল। তার সঙ্গে ২৭ বছর বয়সী এক মালয়েশীয় নারীও গ্রেফতার হয়। ওই ফিলিপিনোকে বিয়ে করে তাদের ফিলিপাইনে যাওয়ার কথা ছিল।

ডি.স/আ.হু

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ