ঢাকা, বুধবার 25 January 2017, ১২ মাঘ ১৪২৩, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ডেমোক্র্যাটদের আশা জাগানিয়া পাখি মিশেল ওবামা

২৪ জানুয়ারি, ‘পলিটিকো’ : সদ্য বিদায়ী মার্কিন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা বার বার জানিয়েছেন তিনি কখনোই মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হবেন না। এমন কি তার স্বামী বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাকও ওবামাও বেশ কয়েকবার জানিয়েছেন মিশেল প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হবে না। তবে অনেক মানুষ এখনো তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছে। তাদের আশা মিশেল তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেন।
গত বছরের নবেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজয়ের পর ‘ড্রাফট মিশেল’ হ্যাশট্যগ ব্যবহার করে মিশেলকে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হওয়ার কথা জানিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও মিশেলকে নিয়ে বেশ আলোচনা হয়। টুইটার ও ফেইস বুকে তাকে হোয়াইট হাউজের জন্য লড়াই করা অথবা ডেমোক্রেটিক দলের চেয়ারপারসন হিসেবে থাকার আহবান করা হয়েছে।
মার্কিন টিভি উপস্থাপক জিমি ফেলন চলতি মাসের শুরুতে ‘দ্য টু নাইট শো’ তে ফার্স্ট লেডি মিশেলের বেশ প্রশংসা করেন। ওবামা পত্নিকে তিনি শক্তিশালী মনোবলের অধিকারী, স্মার্ট, স্বাধীন নারী হিসেবে আখ্যা দেন। এছাড়া ফেলন মিশেল ওবামাকে স্টাইল আইকন ও গ্রেট ডেন্সার উপাধি দিয়ে তাকে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হতে জোর দাবি জানান।
এখানেই শেষ নয়। মিশেলের ব্যক্তিগত জীবনের কর্মকা- নিয়েও অনেকের বেশ আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। তাকে ওবামা প্রশাসনের তৃতীয় ধাপ ধরা হচ্ছে।
কানেকটিকাটের শল্য চিকিৎসক ইরিক রিচ মিশেল ওবামাকে নিয়ে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছেন। ‘রেডি ফর মিশেল-২০২০’ নামে একটি ক্যাম্পেইন চালু করেছেন এই চিকিৎসক। আগামী চার বছরের মধ্যে নিজেকে তৈরি করার আহবান জানিয়ে মিশেলকে নিয়ে কাজ করছেন তিনি।
ইরিকের দৃষ্টিতে, মিশেলের জন্য মানুষের মন জয় করা সহজ হবে কারণ গত ৮ বছর যাবত মিশেল বহু উচ্চ-নিম্ন মানুষের সঙ্গে চলাফেরা করেছেন, মিশেছেন। এই সব কাজের সঙ্গে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছিলেন মিশেল। আমরা একজন নারী প্রেসিডেন্টের জন্য প্রস্তুত। সবাই মিশেলকে অনেক পছন্দ করেন। সবাই তাকে শুধু চিনেনই না সবাই তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চায়।
এদিকে ওবামা এখন ওয়াশিংটনের বাইরেও বেশ জনপ্রিয় একজন ব্যক্তি। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে জনপ্রিয়তা নিয়ে যে ক’জন প্রেসিডেন্ট বিদায় নিয়েছেন তাদের মধ্যে একজন বারাক ওবামা। গত সপ্তাহে গ্যালাপের এক সমীক্ষায় বলা হয়েছে ওবামার ৬০ শতাংশ জনপ্রিয়তা নিয়ে মসনদ ত্যাগ করেছেন।
মজার বিষয় হলো মিশেলের জনপ্রিয়কা ওবামার চেয়েও বেশি। ফার্স্ট লেডি হিসেবে মিশেলের রেটিং ছিল ৬৮ শতাংশ।
প্রেসিডেন্ট ওবামার চেয়ে ৮ ভাগ বেশি জনপ্রিয়তা নিয়ে হোয়াইট হাউজ ছাড়েন মিশেল। অনেক নারী তাকে পছন্দ করেন।
রুটজারস ইউনির্ভাসিটির এগলিটন ইন্সটিটিউট অব পলিটিকসের পরিচালক রুথ ম্যানডিল মিশেল ওবামা সম্পর্কে বলেন, আমার পর্যবেক্ষণে মিশেল ওবামা তার অভিজ্ঞতা দিয়ে আমাদের আশা ও স্বপ্নকে জাগ্রত করতে পারবেন। তিনি একজন আলোক বর্তিকা হয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দিতে পারবেন। তার অভিজ্ঞতা ও মননের ওজন পরিমাণ করা কঠিন। তিনি সত্যিই আমাদের ‘ন্যাশনাল আইকন’।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ