ঢাকা, বুধবার 25 January 2017, ১২ মাঘ ১৪২৩, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দোষী প্রমাণিত হলে নিষিদ্ধ হবে সানি -পাপন

স্পোর্টস রিপোর্টার : তথ্য ও প্রযুক্তি মামলায় আরাফাত সানি আদালতে দোষী প্রমাণিত হলে তাকে নিষিদ্ধ করবে বিসিবি। এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সানির ঘটনার ব্যাপারে পাপন বলেন, ‘একটা জিনিস বলতে পারি, এমন বিষয় বিসিবি কখনো বরদাস্ত করেনি। করবেও না। কেউ যদি এই ধরনের কাজ করে দোষী প্রমাণিত হয়, অবশ্যই সে নিষিদ্ধ হবে। তবে তার আগে অবশ্যই বিষয়টি প্রমাণ হতে হবে। আগে আদালতে প্রমাণ হোক। একটা নিউজ দেখে তো আমরা নিষিদ্ধ করতে পারি না।’ গত দুই বছরে প্রায় একই কারণে ঘটিয়ে জেল খেটেছেন পেসার রুবেল হোসেন। একই সঙ্গে গৃহকর্মী নির্যাতনের ঘটনায়ও জেল খেটেছেন শাহাদাত হোসেন রাজিব। ২০১৪ সালের শেষ দিকে অখ্যাত নায়িকা নাজনিন আক্তার হ্যাপির দেয়া ধর্ষণ মামলায় জেলে যেতে হয়েছিল রুবেল হোসেনকে। যদিও পরে হ্যাপি ওই মামলা তুলে নেন। এরপর ২০১৫ সালের শেষ দিকে গৃহকর্মীকে নির্যাতন করে জেল খাটেন রাজিব। তাই ক্রিকেটারদের এসব ব্যাপার নিয়ে চিন্তিত বিসিবি। বিসিবি সভাপতি বলেন,‘এটা নিয়ে আমরা (বিসিবি) চিন্তিত। তিনটা খেলোয়াড় যে জেলে গেছে। বিসিবি সেটা  দেখেছে। যারা অন্যায় করেছে তারা শাস্তি পাবে। আগেও যে সমস্ত ঘটনা ঘটেছে, সে গেুলোতে বিসিবি কিন্তু ছাড় দেয়নি। বিসিবি তাদেরকে অনেক টাকা পর্যন্ত জরিমানা করেছে।’ শাস্তির মাত্রা যে ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়ার মতোও হতে পারে, সেটা জানিয়ে রাখলেন নাজমুল, ‘এ ধরনের ঘটনায় আগে আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে অনেককে (সাব্বির ও আল আমিন) শাস্তি দেওয়া হয়েছে। যদি কেউ আদালতে নারী কিংবা অন্য কারণে দোষী হয়, এ ধরনের ক্রিকেটার আমাদের দরকার নেই।  দোষী হলে অবশ্যই তাকে আমরা নিষিদ্ধ করব।’ তথ্য-প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় গতকাল জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একদিনের রিমান্ড  শেষে আরাফাত সানিকে ঢাকা সিএমএম আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদশর্ক ইয়াহিয়া।
আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম জাকির  হোসেন টিপু তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে রোববার আরাফাত সানিকে ঢাকা সিএমএম আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করেন এসআই  ইয়াহিয়া। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম প্রণব কুমার হুই একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সানির বিরুদ্ধে মোট দুটি মামলা করেন নাসরিন সুলতানা নামের এক তরুণী। একটি তথ্য-প্রযুক্তি আইনে ও একটি যৌতুক আইনে। এছাড়া গতবছরের শেষ দিকে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) চলাকালীন সময়েও শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ আনা হয় সাব্বির রহমান ও আল-আমিন হোসেনের বিরুদ্ধে। পরে তারা দোষ স্বীকার করলে বড় অংকের জরিমানাই করা হয় এ দুই ক্রিকেটারকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ