ঢাকা, বুধবার 25 January 2017, ১২ মাঘ ১৪২৩, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নাজিরপুরে ইটভাটার শ্রমিক মাহাতাব হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন

নাজিরপুর (পিরোজপুর) সংবাদদাতা : পিরোজপুরের নাজিরপুরে আলোচিত ইটভাটার শ্রমিক মাহাতাব হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করেছে পুলিশ। এ খুনের ঘটনায় জড়িত প্রধান আসামী মহসিন সরদারকে গত ১৮ জানুয়ারী গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামীর কাছ থেকে খুন হওয়া মাহাতাবের ব্যবহৃত দু’টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।
উপজেলার সাতকাছেমিয়া গ্রামের কালাম সরদারের ছেলে আসামী মহসিন সরদার (৩২) ও একই গ্রামের মৃত আজাহার খানের ছেলে মাহাতাব খান (৩৫) উপজেলার শাখারীকাঠী গ্রামের সামসু মোল্লার ইটভাটায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করত। ওমান প্রবাসি মাহাতাবের স্ত্রী ঘটনার দিন মাহাতাবকে ২০ হাজার টাকা পাঠায়। ওই টাকা আত্মসাৎ করাসহ পূর্ব বিরোধের জেরে মাহাতাবকে খুন করা হয়েছে বলে মহসিন স্বীকার করে। নাজিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিবুর রহমান জানান, ‘ঘটনার পর থেকেই তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে খুনের রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা চলছিল। তারই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে খুনের ঘটনায় জড়িত মহসিন সরদারকে আটক করা হয়। স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বসত ঘর থেকে খুন হওয়া মাহাতাবের ব্যবহৃত দু’টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। মহসিন খুনের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বৃহস্পতিবার আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। উল্লেখ্য, চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি সকাল ১০টার দিকে পুলিশ উপজেলার কালিগঙ্গা নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় মাহাতাবের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনার তিন দিন পূর্ব থেকে মাহাতাব নিখোঁজ থাকায় তার ভাই থানায় জিডি করেছিল। লাশ উদ্ধারের পর দুজনকে আসামী করে খুন হওয়া মাহাতাবেব ভাই ফারুক খান বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই দিনই মামলার আসামী জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ