ঢাকা, বুধবার 25 January 2017, ১২ মাঘ ১৪২৩, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কথাশিল্পী নজিবর রহমানের ১৫৮তম জন্মবার্ষিকী পালন

প্রখ্যাত ‘আনোয়ারা’ উপন্যাসের লেখক বাংলা সাহিত্যের অমর কথাশিল্পী মোহাম্মদ নজিবর রহমান সাহিত্যরত্নের (জন্ম ২২ জানুয়ারী ১৮৬০, মৃত্যু ১৮ অক্টোবর ১৯২৫) ১৫৮তম জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে ‘নজিবর রহমান সাহিত্যরত্ন একাডেমি’র পক্ষ থেকে ২০ জানুয়ারী সিরাজগঞ্জ জেলার হাটিকুমরুলে সাহিত্যরত্নের বসতবাটিতে এক মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সাহিত্যরত্নের পরিবার ও স্থানীয় বিভিন্ন সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, লেখক ও গবেষক অধ্যাপক মুহম্মদ মতিউর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান মারুফ বিন হাবীব, নজিবর রহমান সাহিত্যরত্ন একাডেমি’র সহ-সভাপতি মুহম্মদ আব্দুল হান্নান, রায়গঞ্জ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান এবিএম আব্দুস সাত্তার, অধ্যক্ষ মোঃ সামছুল হক। আলোচক ছিলেন- ইতিহাসবিদ মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমী’র সচিব মোঃ মাহমুদুল হাসান, অধ্যাপক ডক্টর এমএ সবুর, প্রভাষক এসএম আনিসুর রহমান, গাজী সৈয়দ শুকুর মাহমুদ (নজিবর রহমানের নাতি), বিশিষ্ট ব্যাংকার মোঃ মোকাদ্দেস আলী (আতিক), শিক্ষাবিদ মহিবুল্লাহ, মোঃ গোলাম আম্বিয়া, শংকর কুমার রায়, মোঃ মোবারক হোসেন, মোঃ আঃ রহিম, মোঃ রওশন আলী ফকির, মোঃ মনোয়ার হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন জনাব মোঃ আব্দুর রশিদ, উদ্বোধনী বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ সুপীম কোটের আইনজীবী এডভোকেট মোহাম্মদ গোলাম হাসনায়েন (নজিবর রহমানের নাতি)। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জাহাঙ্গীর আলম বিপুল। অনুষ্ঠানে মুহম্মদ মতিউর রহমান রচিত ‘অমর কথাশিল্পী মোহাম্মদ নজিবর রহমান সাহিত্যরত্ন-জীবন ও সাহিত্য’, ‘নজিবর রহমান রচনাবলী, প্রথম খণ্ড (সম্পাদিত) ও ‘নজিবর রহমান রচনাবলী, দ্বিতীয় খণ্ড’ (সম্পাদিত) গ্রন্থসমূহের মোড়ক উন্মোচিত হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মুহম্মদ মতিউর রহমান বলেন, বাংলা সাহিত্যের অমর কথাশিল্পী মোহাম্মদ নজিবর রহমান সাহিত্যরত্ন অসাধারণ জনপ্রিয় লেখক। তাঁর উপন্যাস শিক্ষিত বাঙালি মুসলিমের ঘরে ঘরে পঠিত হতো, শিক্ষা-সামাজিক অনুষ্ঠানে ও বিয়ে-শাদী উপলক্ষে তা উপহার হিসাবে প্রদত্ত হতো। তাঁর সাহিত্যে মুসলিম সমাজচিত্র, ইসলামী আদর্শ, উন্নত নৈতিক চরিত্র ও দাম্পত্য প্রেমের মাহাত্ম্য বর্ণিত হয়েছে। অনুপম প্রাঞ্জল ভাষায় তিনি তাঁর সাহিত্যে অশিক্ষা, কুশিক্ষা, কুসংস্কার ও অনৈতিকতার বিরুদ্ধে মানবতার সপক্ষে জোরালো বক্তৃব্য তুলে ধরেন। নারী শিক্ষার প্রচার, বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ও সামগ্রিকভাবে স্বসমাজের উন্নয়নে তিনি আজীবন সচেষ্ট ছিলেন। প্রধান অতিথি প্রতি বছর লেখকের জন্ম ও মৃত্যু দিবস পালনের জন্য জাতীয় প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমিসহ বিভিন্ন শিক্ষা-সাহিত্য-সামাজিক সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি নজিবর রহমানের সাহিত্য কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্যতালিকাভুক্ত করার এবং প্রতি বছর তাঁর জন্মদিবস উপলক্ষ্যে হাটিকুমরুলে ‘নজিবর রহমান মেলা’র আয়োজন করার উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান। সহস্রাধিক শ্রোতা-দর্শকের তুমুল করতালির মধ্যে তিনি আগামীতে হাটিকুমরুলে ‘নজিবর রহমান একাডেমি ভবন’ নির্মাণের ঘোষণা দেন এবং এ ব্যাপারে সরকারি-বেসরকারিভাবে সকলের প্রতি সহযোগিতার হস্ত সম্প্রসারিত করার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠান শেষে সকলকে আপ্যায়িত করা হয়।
-মোঃ আবু তাহের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ