ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 January 2017, ১৩ মাঘ ১৪২৩, ২৭ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আজ ঢাকা মহানগরীতে ৬টা-২টা হরতাল

স্টাফ রিপোর্টার : বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবন রক্ষা এবং ধ্বংসাত্মক রামপাল কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগরীতে অর্ধদিবস হরতাল ডেকেছে তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি। সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ এ হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি। একই সাথে বিভিন্ন বাম সংগঠন এ হরতালে সমর্থন জানিয়েছে। 

গতকাল বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ ও সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, গত ৭ বছর ধরে সুন্দরবনবিনাশী রামপাল কয়লা প্রকল্প বাতিলসহ বিদ্যুৎ ও গ্যাস সমস্যা সমাধানের জন্য ৭ দফা বাস্তবায়নে আমরা লংমার্চ, প্রতিবাদ-বিক্ষোভ, মহাসমাবেশসহ নানা কর্মসূচি পালন করছি। কিন্তু সরকার এই প্রকল্প বাতিল না করে উল্টো সুন্দরবনের জন্য ক্ষতিকর নানা তৎপরতা চালাচ্ছে। তাই আমরা বাধ্য হয়ে হরতাল পালনের কর্মসূচি দিয়েছি। 

বিবৃতিতে ঢাকা মহানগরীর সকল প্রতিষ্ঠান, যান্ত্রিক পরিবহন ও ব্যক্তিগত কাজ বেলা ২টা পর্যন্ত বন্ধ রেখে শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালন করে সুন্দরবন রক্ষা আন্দোলনে শরীক হতে ঢাকাবাসীর প্রতি আহবান জানানো হয়। 

 তবে পথচারী, সাইকেল-রিকশা-ভ্যান, এ্যাম্বুলেন্স, গণমাধ্যমসহ বিদ্যুৎ-ফায়ার ব্রিগেডের গাড়ি, কাঁচা বাজার, ওষুধের দোকান হরতালের আওতামুক্ত থাকবে। 

 এদিকে হরতালের সমর্থনে জাতীয় কমিটি, কমিটিভুক্ত বিভিন্ন সংগঠন ও সুন্দরবনের সমর্থক নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ বুধবার সকালে কমলাপুর রেল স্টেশন, মতিঝিলসহ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পদযাত্রা, সমাবেশ, মিছিল করেছে। এসব সমাবেশে জাতীয় কমিটির কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিত্বকারী ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

 এছাড়া সাংস্কৃতিক কর্মী ঢাকা শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে সংগীত পরিবেশন করে সুন্দরবন বাঁচানোর সংগ্রামে অংশ নেয়ার আহ্বান জানান। গত সন্ধ্যায় ছাত্র সংগঠনসমূহের উদ্যোগে টিএসসি থেকে মশাল মিছিল বের করে হরতালের সমর্থনে। 

এদিকে জাতীয় কমিটি ঢাকায় আহুত অর্ধদিবস হরতালের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, গণমুক্তি ইউনিয়ন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক লীগ, শ্রমজীবী সংঘ, কমিউনিস্ট ইউনিয়ন, সমন্বিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরাম, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি, গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, ওএসকে গার্মেন্টস এন্ড টেক্সটাইল শ্রমিক ফেডারেশন, জাতীয় সোয়েটার গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স ফেডারেশন, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক মুক্তি আন্দোলন, বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি, গার্মেন্টস শ্রমিক আন্দোলন ও গার্মেন্টস শ্রমিক সভাসহ বিভিন্ন বামঘরানার সংগঠন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ