ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 January 2017, ১৩ মাঘ ১৪২৩, ২৭ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মহাসড়কে নসিমন করিমন চলাচল বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার : সারা দেশের মহাসড়কে অবৈধ নসিমন, করিমন ও ভটভটি চলাচল বন্ধে সার্কুলার জারি করতে সরকারের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় ১০ জেলার মহাসড়ক থেকে শ্যালো ইঞ্জিনচালিত তিন চাকার বাহন নসিমন, করিমন প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আগামী সাত দিনের মধ্যে এসব যানবহন প্রত্যাহার করতে বলা হয়েছে রায়ে।

এ ব্যাপারে জারি করা রুলের চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করে গতকাল বুধবার বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দ সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। 

রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালতের চার দফা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বাগেরহাট, নড়াইল, সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, মাগুরা, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, খুলনা ও যশোর-এই দশ জেলায় মহাসড়কে নসিমন, করিমন ও ভটভটি চলাচল বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি এবং সংশ্লিষ্ট জেলার পুলিশ সুপারদের এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হবে। 

 দেশের অন্যান্য জেলার মহাসড়কেও এসব অনিন্ধিত যানবাহন চলাচল বন্ধের ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দিয়ে একটি পরিপত্র জারি করতে স্বরাষ্ট্রসচিবকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আদালতের নির্দেশ বাস্তবায়নে কতটুকু অগ্রগতি হল তা জানিয়ে ছয় মাস পর পর হলফনামা আকারে আদালতে প্রতিবেদন দিতে হবে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওই ধরনের যান চলাচল করলে সংশ্লিষ্ট মালিক ও চালকের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে বলেছে আদালত।

হিউম্যান রাইটস এন্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে জনস্বার্থে দায়ের করা এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ২০১৪ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি ওই রুল জারি করেন বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি মো. হাবিবুল গণি সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ। রুলে মহাসড়কে যান চলাচলের অনুমতির ক্ষেত্রে মটর ভ্যাহিকেল অর্ডিন্যান্স এর বিধান অনুসরণ করা এবং এসব মহাসড়কে এ ধরনের যান চলাচল বন্ধে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চান আদালত। সরকারের স্বরাষ্ট্র সচিব, অর্থ সচিব, পুলিশের আইজি, ডিআইজিসহ দশ জেলার পুলিশ সুপারদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, এসব বাহন মহাসড়কে চলাচল করায় প্রতিদিন বহু যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে এবং শত শত কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়। এজন্যই জনস্বার্থে রিটটি দায়ের করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ