ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 January 2017, ১৩ মাঘ ১৪২৩, ২৭ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পাকিস্তানে পার্লামেন্টে নারী এমপিকে হেনস্তার পর ক্ষমা প্রার্থনা

২৫ জানুয়ারি, এএফপি : এমপি নুসরাতকে বোন ডেকে ক্ষমা চান প্রাদেশিক মন্ত্রী ইমদাদ পিতাফিএমপি নুসরাতকে বোন ডেকে ক্ষমা চান প্রাদেশিক মন্ত্রী ইমদাদ পিতাফি পাকিস্তানে এক নারী আইনপ্রণেতা পার্লামেন্টে পুরুষ সহকর্মীদের হাতে হেনস্তার শিকার হওয়ার পর আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ব্যাপকভাবে প্রচারিত এ ঘটনায় বুঝা গেছে নারী সুরক্ষা আইন সঠিকভাবে কার্যকর হচ্ছে না। সিন্ধু প্রদেশের এমপি নুসরাত সাহার আব্বাসী গত শুক্রবার হেনস্তার শিকার হওয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান। তিনি অভিযোগ করেন, প্রাদেশিক মন্ত্রী ইমদাদ পিতাফি পার্লামেন্টে তার নিজের খাস কামরায় তাকে আসতে বলেন। এরপর তিনি তাকে উদ্দেশ্য করে যৌন উস্কানিমূলক মন্তব্য করেন। নুসরাত বলেন, তিনি এর তীব্র বিরোধিতা করেন এবং পার্লামেন্টে এর বিচার চান। তবে একজন নারী হয়েও পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিতে অস্বীকৃতি জানান। এতে নুসরাত হতাশ হয়ে পড়েন এবং একটি ছোট বোতল তুলে ধরে বলেন, এর মধ্যে পেট্রোল আছে এবং কোন পদক্ষেপ নেয়া না হলে তিনি তা গায়ে ঢেলে আত্মহত্যা করবেন। শনিবার বিভিন্ন পত্রিকার এ ছবি প্রকাশিত হয়। ঘটনাটি নিয়ে সামাজিক গণমাধ্যমে হৈচৈ শুরু হলে দলের কেন্দ্রীয় প্রধানরা হস্তক্ষেপ করেন এবং পিতাফির ওপর চাপ দেন। অবশেষে পিতাফি পার্লামেন্টে নুসরাতকে বোন ডেকে ক্ষমা চান। নুসরাত আব্বাসী মঙ্গলবার বলেন, এটি এখন শেষ হয়েছে। তবে ঘটনাটি নারী সুরক্ষা আইন বাস্তবায়ন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। তিনি বলেন, আইনটি বাস্তবায়নে তারা নাটক করছে। এমনকি পার্লামেন্ট সদস্যরাও লিঙ্গ বৈষম্য ও হেনস্তা থেকে রক্ষা পাচ্ছে না।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ