ঢাকা, রোববার 29 January 2017, ১৬ মাঘ ১৪২৩, ৩০ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সার্চ কমিটি দলীয় সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করতে পারবে বলে মনে করি না --- মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার : নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটি দলীয় সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করতে পারবে কিনা- সে বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, যে সার্চ কমিটি গঠিত হয়েছে, তারা কী করবেন, এটা সম্পর্কে আমাদের ধারণা প্রায় স্পষ্ট। সেজন্য আমরা পার্টি হিসেবে নতুন করে কোনো আশা দেখতে পাচ্ছি না। এখন জনগণের আশা-আকাংখার  প্রতিফলন তারা যদি ঘটাতে পারেন, তাহলে আমরা মনে করব দলীয় সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে তারা কাজ করবেন। জানি না তারা পারবেন কিনা। আমরা খুব বেশি আশা করছি না। জাতীয়তাবাদী যুবদলের নবগঠিত কমিটিকে সঙ্গে নিয়ে গতকাল শনিবার শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সার্চ কমিটি নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
এই কমিটি নিয়ে বিএনপির আপত্তির কথা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের মানুষ প্রত্যাশা করে রাজনৈতিক সংকট নিরসন করতে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য একটি নিরপেক্ষ সার্চ কমিটি সত্যিকার অর্থেই নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের দিয়ে গঠন করা হবে। কিন্তু... দুর্ভাগ্যজনকভাবে সার্চ কমিটির যারা সদস্য হয়েছেন তারা প্রায় সবাই আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত। সেক্ষেত্রে তাদের দ্বারা গঠিত নির্বাচন কমিশন কতটুকু নিরপেক্ষ হবে সে সম্পর্কে আমরা সন্দেহ প্রকাশ করেছি। এই কমিটিতে দেশের মানুষের আশা-আকাংখা পূরণ হয়নি মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, এতে আমরা আহত হয়েছি, আমরা ক্ষুব্ধ।
এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, জাতিসংঘ ও ঢাকায় নিযুক্ত কয়েকটি দেশের কুটনৈতিকবৃন্দের উদ্যোগে যদি আগে সার্চ কমিটি গঠন হতো তাহলে কার্যকর ও ফলপ্রসূ হতে পারতো। এখন কতটা ফলপ্রসূ হবে সে বিষয়ে আগাম কিছুই বলতে চাই না। তবে শুধু এটুকু বলবো, অতীতে জাতিসংঘের উদ্যোগ সফল হয়নি। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জাতীয়তাবদী যুবদল অধিকার আদায়ে দেশের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন গড়ে তুলবে বলে দলের প্রতিষ্ঠাতার মাজারে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়ে শপথ নিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল।
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার আগে যুবদলের নতুন সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর নেতৃত্বে কমিটির সদস্যদের নিয়ে জিয়ার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান মির্জা ফখরুল। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, আমিরুল ইসলাম আলিম, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, যুবদলের নতুন কমিটির মোর্ত্তাজুল করীম বাদরু, নুরুল ইসলাম নয়ন, মামুন হাসান, উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম মিল্টন, দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোওলা শাহিন প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। দীর্ঘ সাত বছর পর গত ১৭ জানুয়ারি নীবর-টুকুর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের আংশিক কেন্দ্রীয় কমিটি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তরের আংশিক কমিটি অনুমোদন দেয় বিএনপি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ