ঢাকা, রোববার 29 January 2017, ১৬ মাঘ ১৪২৩, ৩০ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

গুলশানে পাওয়া অজ্ঞাত নারীর লাশে মিলল দু’টি গুলী

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে এক অজ্ঞাতনামা নারীর লাশ থেকে দুটি গুলী উদ্ধার করেছেন চিকিৎসকরা। গতকাল শনিবার লাশটির ময়না তদন্তের সময় এ দুটি গুলী পাওয়া যায়। অজ্ঞাত এই নারীর বয়স আনুমানিক ৩০-৩৫ বছর বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
ঢামেক মর্গের রেজিস্ট্রার খাতা অনুযায়ী গত শুক্রবার দিবাগত রাত ১টা ৪০ মিনিটে গুলশান থানা-পুলিশ এই নারীর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেখে যায়। সড়ক দুর্ঘটনায় ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে মর্গের রেজিস্ট্রার খাতায় লিখে যায় তারা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের চেয়ারম্যান সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ওই নারীর শরীরের ডান পাশ দিয়ে গুলী ঢুকেছে। একটি গুলী তার ফুসফুস এবং অন্যটি তার বাম স্তন থেকে পাওয়া গেছে। গুলীতেই তার মৃত্যু হয়েছে। গুলীটি কি ধরনের সে বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এটি দেখবেন।
লাশটি গুলশান ২ এর ৪৩ নম্বর রোডের ৩৮ নম্বর বাড়ির বাড়ির সামনে রাস্তার ওপর পড়েছিল। সেখান থেকে গুলশান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফারুক আলম লাশটি উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। ফারুক আলম জানান, রাতে তিনি টহল ডিউটিতে ছিলেন। এ সময় থানা থেকে জানানো হয় লাশটির কথা। গিয়ে দেখেন দেহটি চিত হয়ে পড়ে আছে। পরনে হলুদ রঙের সালোয়ার কামিজ ছিল। ডান কাঁধের নিচে রক্ত ছিল, মনে হচ্ছিল থেঁতলে গেছে। কোন গর্ত ছিল না। তার মুখে হালকা মেকাপ ছিল। যে জায়গাটিতে লাশটি পড়েছিল সেখানে কোন রক্ত জমাট বাঁধা ছিল না।
ফারুক আলম বলেন, প্রাথমিকভাবে কোন গাড়ির ধাক্কায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে মনে হয়েছে। তাকে গুলী করা হলেও অন্য কোথায় গুলী করে এখানে এনে লাশ ফেলে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়ে তিনি বলেন, কেউ মামলা না করলে পুলিশ নিজেই হত্যা মামলা করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ