ঢাকা, বৃহস্পতিবার 13 December 2018, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শেয়ারবাজার নিয়ে গভর্নরের শঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক: শেয়ারবাজারে নজরদারি না বাড়ালে অতীতের মতো আবারও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা গুরুতর ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধের (জানুয়ারি-জুন) মুদ্রানীতি ঘোষণার সময় তিনি এ আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

ফজলে কবির বলেন, ‘২০১০ সাল থেকে বিরাজমান মন্দাবস্থা থেকে বেরিয়ে আসছে। এই প্রক্রিয়াটি নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের সুদৃঢ় করার জন্য কার্যকরী নজরদারি অতীব জরুরি, না হলে অতীতের মতো এবারও প্রলুব্ধ ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের গুরুতর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকবে। এছাড়া উদ্যোক্তাদের ও অস্বাভাবিক উচ্চ মূল্য আয় অনুপাতের (পিই) শেয়ারের বিপরীতে মার্জিন ঋণ যোগানের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করা বাঞ্ছনীয়। 

তিনি বলেন, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে সঠিক খাতে ব্যবহার না করে, কেউ অতিলোভে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে কি না সেদিকে নজর জোরদার করতে হবে।

শেয়ারবাজারে সতর্ক পদক্ষেপ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্যাংকগুলোর ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপোজার সীমা নিয়ে আইন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।  

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে গভর্নর বলেন, শেয়ারবাজারের অতীতের উত্থান-পতন এবং বর্তমান অবস্থার কারণ নির্ণয় নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশ ব্যাংকের কাজ নয়। এটি নিয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন কাজ করছে।

মুদ্রানীতি ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন- ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী, মো. মনিরুজ্জামান, চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট উপদেষ্টা আল্লাহ মালিক কাজেমি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ