ঢাকা, মঙ্গলবার 31 January 2017, ১৮ মাঘ ১৪২৩, ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফজলের সেঞ্চুরিতে ভালই জবাব দিচ্ছে দক্ষিণাঞ্চল

স্পোর্টস রিপোর্টার : দুই দিনের বেশি সময়ে নিয়ে প্রায় ১৯০ ওভার ব্যাটিং করেছে উত্তরাঞ্চল। আর তাতেই ৪৯২ রানের বড় সংগ্রহ করেছে তারা। যদিও ফজলে মাহমুদের সেঞ্চুরিতে খুব ভালো জবাব দিচ্ছে প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চল। গতকাল সোমবার তৃতীয়দিন শেষে তারা পিছিয়ে ১৯৮ রানে, হাতে এখনও রয়েছে ৬টি উইকেট।  বাকি রয়েছে একদিন, প্রায় নিশ্চিতভাবেই বলা যায় ম্যাচটি ড্রয়ের পথেই যাচ্ছে। উত্তরাঞ্চল ৩ উইকেট হাতে রেখে ৪৭৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল।  দিনের শুরুতে দক্ষিণাঞ্চলের বোলাররা চেপে ধরলে মাত্র ৫.৩ ওভারে বাকি তিন উইকেট হারিয়ে আর ১৮ রান যোগ করেই অলআউট হয় উত্তরাঞ্চল।
আগের দিন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখা নাঈম ইসলাম এদিন আর ৯ রান যোগ করেই ফিরে যান আবদুর রাজ্জাকের দারুণ এক ডেলিভারিতে। শেষ পর্যন্ত ৪৭৫ বলে ১৩ চার ও ২ ছয়ে নাঈমকে থামতে হয় তার ১৮৫ রানের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসে।  শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে নাঈম আউট হওয়ার আগে উত্তরাঞ্চলের স্কোরবোর্ডে জমা হয় ৪৯২ রান। দক্ষিণাঞ্চলের বোলারদের মধ্যে রাজ্জাক সর্বোচ্চ ৫টি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া সোহাগ গাজী দুটি এবং জিয়াউর রহমান ও নাজমুল ইসলাম প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নিয়েছেন। উত্তরাঞ্চলের প্রথম ইনিংসের দেওয়া বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই ভালো জবাব দিয়ে গেছে দক্ষিণাঞ্চল।  ফজলে মাহমুদের অপরাজিত ১২১ রানের কল্যাণে তৃতীয় দিন শেষে তারা ৪ উইকেট হারিয়ে ২৯৪ রান করেছে। অর্থাৎ দিনশেষে দক্ষিণের দলটি পিছিয়ে ১৯৮ রানে।  প্রথম উইকেটে শাহরিয়ার নাফিসের সঙ্গে ৮০ রানের জুটি গড়েন ফজলে।  নাফিস ফিরে গেলে এনামুল দ্রুত বিদায় নেন। তৃতীয় উইকেটে তুষার ফের জুটি বাধেন ফজলের সঙ্গে।  ওখানে আসে গুরুত্বপূর্ণ ৮৪ রান।  তুষার ইমরানও ব্যাক্তিগত ৪৭ রানে ফিরে গেলে অপরপ্রান্তে অবিচল থাকেন ২৯ বছর বয়সী অলরাউন্ডার ফজলে।  এরপর চতুর্থ উইকেটে মিঠুনের সঙ্গে ৫৫ রানের জুটি আসে।  শেষ উইকেটে মোসাদ্দেক ও ফজলে মিলে অপরাজিত ৪৭ রানের জুটি গড়ে দিন পার করেন। মোসাদ্দেক অপরাজিত আছেন ৩৪ রানে এবং ফজলে ক্যারিয়ারের পঞ্চম প্রথম শ্রেণীর সেঞ্চুরি তুলে নেন।  ২১৩ বলে ১৪ চার ও ২ ছক্কায় তিনি ১২১ রানে অপরাজিত আছেন। বিসিবি উত্তরাঞ্চলের বোলারদের মধ্যে তাইজুল ইসলাম সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নিয়েছেন।  এছাড়া শুভ নিয়েছেন একটি উইকেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ