ঢাকা, রোববার 5 February 2017, ২৩ মাঘ ১৪২৩, ৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইসলাম গ্রহণের পর এবার মদ নিষিদ্ধ করলেন নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি

৪ ফেব্রুয়ারি, মিরর/টাইমস : নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি মেন্ডলা ম্যান্ডেলা ২০১৬ সালে ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ার পর এবার তার খ্রিস্টান অধ্যুষিত গ্রামে এলকোহল ও মদ বিক্রি নিষিদ্ধ করেছেন। তবে, তার এ সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকার মদ বিক্রেতা ও ক্রেতারা।
 মেন্ডলা ম্যান্ডেলা (৪২) তার এমভেজো গ্রামের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০৭ সালে পিতামহ নেলসন ম্যান্ডেলা কর্তৃক তাকে এ পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল।
গত বছরের গোড়ার দিকে তিনি রাবিয়া ক্লার্ক নামে এক মুসলিম নারীকে বিয়ে করেন এবং তাকে বিয়ের দুই মাস পূর্বে তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হন।
এলকোহল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তে বিক্রেতা ও ক্রেতাদের ক্ষোভের মুখে মেন্ডলা ম্যান্ডেলা দাবি করেছেন, তার এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে তার ধর্মের কোনো সম্পর্ক নেই।
গতবছর  মেন্ডলা জানিয়েছিলেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি ট্রাকযোগে এমভেজো গ্রামের মদের দোকানগুলোতে এলকোহল পরিবহন নিষিদ্ধ করতে চান।
এমভেজো গ্রামে ‘জোসা’ উপজাতিরা বসবাস করেন। তাদের অধিকাংশই খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী।
মেন্ডলা জানান, তার গ্রামে সব ধরনের এলকোহলের ডেলিভারি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যদিও, সেখানকার সরাইখানাগুলোর মদের লাইসেন্স রয়েছে এবং বৈধভাবেই তারা মদ বিক্রি করে আসছে।
এলকোহল ডেলিভারি এবং মদ বিক্রি নিষিদ্ধ করায় সরাইখানার মালিকরা মেন্ডলার ওপর অত্যন্ত ক্রুদ্ধ।
ডোডু নামে একজন সরাই মালিক বলেন, ‘আমরা জানি, যদিও তিনি মদ পান করে না। কিন্তু তিনি তার প্রাসাদে অতিথিদের জন্য এলকোহল রাখেন। তাই তার এ সিদ্ধান্তে আমি অত্যন্ত বিস্মিত।’
তিনি আরো বলেন, ‘তিনি যদি এতো এলকোহল বিরোধী হন, তবে তিনি তার বাড়িতে এটা রাখতে পারবেন না। একটি পুরো মাসের জন্য ট্রাকগুলো আমাদের মাল ডেলিভারি বন্ধ করে দিয়েছে।’
টাইমস জানায়, মেন্ডলার আইনজীবী জানিয়েছেন যে, এই নিষেধাজ্ঞার সঙ্গে তার পরিবর্তিত ধর্মের কোন সম্পর্ক নেই। এলাকার পরিবারগুলোর উপর এলকোহলের ধ্বংসাত্মক প্রভাবের কারণেই এটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
ইসলামে কোনো ধরনের মাদকদ্রব্যের ব্যবহার, বিশেষকরে এলকোহল গ্রহণকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পবিত্র কুরআন মজীদের বেশ কয়েকটি পৃথক আয়াতের মাধ্যমে এটি নিষিদ্ধের কথা বলা হয়েছে।
 মেন্ডলা জানান, এইডসের কারণে ২০০৫ সালে তার পিতা মারা যান। তাকে পূর্বে এলকোহলের বিপদ সম্পর্কে অনেকবার সতর্ক করা হয়েছিল।
তিনি বলেন, ‘আমার বাবার মৃত্যুর অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে তার অতিমাত্রায় এলকোহল গ্রহণ।’
তিনি আরো বলেন, ‘মারা যাবার পূর্বে তিনি আমাকে এবং আমার অনুজ এনদাবাকে বলেগিয়েছেন যে, এলকোহল অত্যন্ত খারাপ জিনিস এবং আমরা যেন কখনোই এলকোহল পান না করি।’
 মেন্ডলা ম্যান্ডেলা ২০০৫ ‘তানদো মাবুনা’কে তার প্রথম স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করেন। পরে মেন্ডলাকে ‘বন্ধ্যা’ অভিযোগ দিয়ে ওই নারী বিবাহবিচ্ছেদের মামলা দায়ের করেন।
তারপর ২০১০ সালে তিনি ফরাসি নাগরিক ‘অ্যানিস গ্রিমউড’কে তার দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করেন। ২০১১ সালে দ্বিতীয় স্ত্রী একটি পুত্র সন্তান প্রসব করেন কিন্তু এক বছর পরে মেন্ডলা ওই সন্তানের পিতৃত্ব অস্বীকার করেন এবং দাবি করেন যে, শিশুটি তার ভাইয়ের ঔরসজাত।
২০১১ সালে বড়দিনের আগের দিন তিনি তার তৃতীয় স্ত্রী হিসেবে ‘এমবালি মাকায়তিনি’কে বিয়ে করেন। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে তিনি তার চতুর্থ স্ত্রীকে বিয়ের দুই মাস পূর্বে তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ