ঢাকা, সোমবার 6 February 2017, ২৪ মাঘ ১৪২৩, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিসিএলে ৫ উইকেট নিলেন রুবেল

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিসিএিলে দারুণ বোলিং করেছেন রুবেল হোসেন। দক্ষিণাঞ্চলের এ পেসারের বোলিংয়ে ইনিংসে হারের সামনে পূর্বাঞ্চল। দিনের অন্য ম্যাচে উত্তরাঞ্চলের রানের পাহাড়ের সামনে পড়েছে মধ্যাঞ্চল। সিলেট আন্তর্জাতিক  স্টেডিয়ামে চারদিনের ম্যাচে প্রথম দিন ব্যাট হাতে দাপট দেখিয়েছিল দক্ষিণাঞ্চল। গতকাল ৬ উইকেটে ৩৭৬ রানে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে তারা। কিন্তু খালেদ আহমেদ ও আবুল হাসান দুটি করে উইকেট নিয়ে দক্ষিণাঞ্চলকে ৪০৩ রানে গুটিয়ে  দেন। ৫৫ রানে  খলতে নেমে জিয়াউর আউট হন ৭২ রানে, আর সোহাগ গাজী আগের দিনের ৪২ রানের সঙ্গে যোগ করতে পেরেছেন কেবল ৪ রান। ৫৭ বলে থামে তার ৪৬ রানের ইনিংস। পূর্বাঞ্চলের পক্ষে সবচেয়ে বেশি ৩ উইকেট নেন এবাদত হোসেন। দুটি করে পান খালেদ ও আবুল। প্রথম ইনিংসে জবাব দিতে  নেমে রুবেলের বোলিং তোপে পড়ে পূর্বাঞ্চল। অবশ্য শুরুটা করেন আরেক তারকা  পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। ইনিংসের প্রথম বলেই ওপেনার ইরফান শুকুরকে বোল্ড করেন ‘কাটার মাস্টার’। এর পর রুবেল তার দ্বিতীয় ওভারে মেহেদি মারুফকে ক্যাচ বানান মুস্তাফিজের। তার পেস আর সামলাতে পারেনি প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা। রুবেল ১০ ওভারে মাত্র ২২ রান দিয়ে তুলে নেন ৫ উইকেট। প্রথম  শ্রেণীর ক্রিকেটে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করতে তৃতীয়বার এক ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছেন তিনি। এছাড়া দুটি উইকেট নেন মুস্তাফিজ ও সোহাগ গাজী। পূর্বাঞ্চলের প্রথম ইনিংসে মাত্র তিন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘরে যান। সর্বোচ্চ ৪৮ রানের ইনিংস খেলেন আবুল। এছাড়া ইয়াসির ৪২ ও জাকির হাসান ১৯ রান করেন। পরিণতিতে মাত্র ৪৩ ওভারে ১৪৪ রানে গুটিয়ে যায় পূর্বাঞ্চল। ফলো অনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নেমেও প্রথম উইকেটটি পূর্বাঞ্চল দেয় রুবেলকে। নিজের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে  মহেদি মারুফকে বোল্ড করেন জাতীয় দলের এ তারকা  পেসার। এরপর আবদুর রাজ্জাকের স্পিনে বিপদে পড়ে পূর্বাঞ্চল। তিনি দুই উইকেট তুলে নেন। ৭৪ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে পূর্বাঞ্চল। অধিনায়ক অলক কাপালি ১০ রানে খেলছেন। দিনের অপর ম্যাচে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিন দ্রুত দুই উইকেট হারায় উত্তরাঞ্চল। ১৭২ রানে খেলতে নামা জুনায়েদ সিদ্দিক থামেন ১৮১ রানে। ধীমান ঘোষ ৬১ রান করেন। তবে  সোহরাওয়ার্দী শুভর (৪৬) সঙ্গে ৭৬ ও ফরহাদ রেজাকে (৩৪) নিয়ে ৬২ রানের জুটি গড়েন আরিফুল হক। অলআউট হওয়ার আগে শেষদিকের এ দুটি অর্ধশতাধিক রানের জুটিতে উত্তরাঞ্চল প্রথম ইনিংসে ৫০২ রান করতে সমর্থ হয়। মধ্যাঞ্চলের শহিদুল ইসলাম ও তাইবুর রহমান তিনটি করে উইকেট নেন। উত্তরাঞ্চলের পাহাড়সম সংগ্রহে উঠতে গিয়ে সুবিধা করতে পারেনি মধ্যাঞ্চল। ৯৬ রানে ৩ উইকেট হারায় তারা। সাইফ হাসানের (৫২) অপরাজিত হাফ  সেঞ্চুরিতে কিছুটা লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে দলটি। তাইবুর অপর প্রান্তে  খেলছেন ১৬ রানে। মধ্যাঞ্চল দিন শেষ করেছে ৩ উইকেটে ১২০ রানে। ইয়াসিন আরাফাত ২টি উইকেট নিয়ে এখন পর্যন্ত উত্তরাঞ্চলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ