ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 February 2017, ২৭ মাঘ ১৪২৩, ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

অরফানেজ মামলায় আদালত পরিবর্তনের আবেদন খালেদা জিয়ার

স্টাফ রিপোর্টার : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিচারিক আদালতের ওপর অনাস্থা জানিয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। এতে আদালত পরিবর্তনের আরজি রয়েছে। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি এই আবেদনের শুনানির দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল বুধবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তী সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন।

ঢাকা ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আবু আহমেদ জমাদারের আদালতে মামলাটির বিচার চলছে। গত বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বিচারকের প্রতি অনাস্থার আবেদন করলে তা নাকচ করা হয়। একই সঙ্গে মামলাটি পুনঃতদন্তের আবেদনও নামঞ্জুর করা হয়। একই আদালতে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার বিচার কাজও চলছে।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী ও আইনজীবী জাকির হোসেন ভূঁইয়া।

পরে জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, মামলার একটি অংশের বিষয়ে তদন্তের জন্য বিচারিক আদালতে আবেদন করা হয়। আদালত তা নিষ্পত্তি না করে ৩৪২ ধারায় বক্তব্য পরীক্ষা করার জন্য রাখেন। এরপর আমরা ওই আদালতের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে একটি আবেদন দিই। গত ২ ফেব্রুয়ারি আবেদনটি খারিজ করেন আদালত। এরপর আদালত বদলের নির্দেশনা চেয়ে আবেদনটি করেন খালেদা জিয়া। তিনি আরও বলেন, এ আবেদনে মামলাটি কেন ওই আদালত থেকে অন্য আদালতে বদলির নির্দেশ দেয়া হবে না, এ মর্মে রুল চাওয়া হয়েছে। এছাড়া মামলার কার্যক্রম স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত ২ ফেব্রুয়ারি জিয়া চ্যারিটেবল ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানিতে হাজির হয়ে খালেদা জিয়া আদালতের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছিলেন। ওই দিন দুই পক্ষের আইনজীবীদের তুমুল হট্টগোলের মধ্য দিয়ে শুনানি শেষ হয়। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার শুনানি শেষে আদালত খালেদা জিয়ার কাছে জানতে চান তিনি (খালেদা জিয়া) দোষী না নির্দোষ? তখন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতের প্রতি অনাস্থার কথা জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ