ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 February 2017, ২৭ মাঘ ১৪২৩, ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক টেস্ট শুরু আজ

রফিকুল ইসলাম মিঞা : বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক টেস্ট আজ শুরু। দীর্ঘ ১৬ বছরের অপেক্ষার পর ভারতের মাটিতে প্রথম টেস্ট খেলতে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ। আর এই টেস্ট দিয়েই ভারতের মাটিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট খেলার সুযোগ পাচ্ছে মুশফিকরা। ২০০০ সালে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হলেও ভারতের মাটিতে এখন পর্যন্ত টেস্ট খেলতে পারেনি বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। অথচ এই সময়ে প্রতিটি টেস্ট প্লেয়িং দেশের মাটিতে একাধিকবার টেস্ট সফর করেছে টাইগাররা। শুধু বাকি ছিল ভারত। আজ ভারতের মাটিতেই টেস্টে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। হায়দরাবার রাজীব গান্ধী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে ঐতিহাসিক এই টেস্ট ম্যাট। বাংলাদেশ সময় সকাল দশটায় শুরু হবে ম্যাচটি। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেসরকারি টেলিভিশন দীপ্ত টিভি ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে। এছাড়া সরাসরি সম্প্রচার করবে স্টার স্পোর্টস-১, স্টার  স্পোর্টস-৩, স্টার স্পোর্টস এইচডি-১ ও স্টার স্পোর্টস এইচডি-৩।
২০০০ সালে ভারতের বিপক্ষেই বাংলাদেশের টেস্ট অভিষেক হয়েছিল দেশের মাটিতে। আবার দূরত্বের দিকেও বাংলাদেশের সবচেয়ে কাছে ভারত। তারপরও ভারতের মাটিতে টেস্ট আতিথিয়তা পেতে বাংলাদেশের সময় লেগেছে এতোবছর। তাও আবার মাত্র একটি টেস্ট ম্যাচ সফর। তাই এই টেস্টটা বাংলাদেশের জন্য ঐতিহাসিক টেস্টই বটে। ইতিমধ্যে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ খেলেছে ফেলেছে ৮টি টেস্ট। আর নবম টেস্টে এসে ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলার সুযোগ পেল টাইগাররা। ফলে মাঠে নামার আগে এই টেস্ট নিয়ে অনেক স্বপ্ন বাংলাদেশের। সবচেয়ে বড় কথা ভারতের বিপক্ষে এই টেস্টে বাংলাদেশের অনেক কিছু প্রমাণ করার আছে। সবার আগে মাঠের পারফরমেন্সে ভারতকে চমকে দিতে পারলেই হবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে উচিত জবাব। কারণ বাংলাদেশ টেস্টে ভালো করতে পারেনা। আর পাঁচদিন টেস্টে বাংলাদেশ টিকতে পারেনা বলে এতোদিন ভারতের মাটিতে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায়নি ভারত। এবার ভারতকে মাঠের পারফরমেন্স দিয়ে জবাব দেয়ার দেয়ার সুযোগ এসেছে বাংলাদেশের। তাই টাইগারদের এই টেস্টে নিজেদের প্রমাণ করার ছাড়া কোন উপায় নেই। এজন্য অবশ্য দলের সবাইকে দায়িত্ব নিয়েই পারফরমেন্স করতে হবে। না হলে ভারত নিজ মাটিতে বাংলাদেশকে কঠিন বাস্তবতার মুখে ঠেলে দিতে পারে। টেস্ট ক্রিকেটে ভারত এক নম্বর দল। ক্রিকেট বিশ্বের যে কোন দলই ভারতের মাটিতে টেস্টে নিজেদের খেই হারিয়ে ফেলে ভারতের ব্যাটিং আর বোলিংয়ে সামনে। সেই তুলনায় টেস্টে নয় নম্বর দল বাংলাদেশকে লড়াই করতে হবে টেস্টে এক নম্বর দল শক্তিশালী ভারতের সাথে। শক্তির তুলনায় টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের ধারে কাছেও নেই বাংলাদেশ। পরিসংখ্যানেও বাংলাদেশ থেকে অনেক অনেক এগিয়ে ভারত। এর আগে ভারতের বিপক্ষে ৮ টেস্টে খেলে বাংলাদেশ হেরেছে ৬টি টেস্টে। আর দুটি টেস্ট ড্র হয়েছে। যার পিছনে বৃষ্টির অবদানও কম ছিলনা। আবার বাংলাদেশকে খেলতে হচ্ছে ভারতের মাটিতেই। ফলে সব দিক দিয়েই ভারতের থেকে পিছিয়ে থেকে বাংলাদেশকে মাঠে নামতে হবে এই ঐতিহাসিক টেস্ট খেলতে। তবে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন আর আগের মতো নতুন দল নয়। দলের সবাই পারপরমেন্স করতে পারলে যে কোন দলকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারে। এই আশা নিয়েই আজ মাঠে নামবে বাংলাদেশ। তবে এই টেস্টটাকে কঠিন ভাবে নিয়েছে ভারতও। যে কোন ভাবেই ভারত চাইবে নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখতে। তাই এই টেস্টটা দু-দলের জন্যই কঠিন হতে পারে।
ঐতিহাসিক এই টেস্টে মাঠে নামার আগে গতকাল দু-দলই নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছে। নিজেদের প্রস্তুত করতে কঠোর অনুশিলন করেছে দু-দল। তবে এই টেস্ট নিয়ে ভালো করার আশাবাদী দু-দলই। টাইগার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এই টেস্টে ভালো করার জন্য ব্যাটসম্যানদের উপরই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। ব্যাটসম্যানরা ভালো করতে পারলে এই টেস্টে দল ভালো করবে এমনাই জানান মুশফিক। প্রস্তুতি ম্যাচে ইনজুরিতে পড়েন বাংলাদেশ দলের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস। তার পরিবর্তে দলে সুযোগ পেয়েছেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তবে পিচের কন্ডিশনের উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশ তিনজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার কিংবা দুইজন বিশেষজ্ঞ পেসার নিয়ে খেলতে পারে বাংলাদেশ। আর ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি বাংলাদেশকে হালকাভাবে দেখছেন না। তার মতে ভারত সেরা শক্তির ব্যবহার করেই নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখবে এই টেস্টে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ