ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 February 2017, ২৭ মাঘ ১৪২৩, ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশকে হালকাভাবে নিচ্ছেন না কোহলি

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক টেস্টকে মোটেও হালকা ভাবে নিচ্ছেন না ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। অভিজ্ঞ ভারতের বিপক্ষে টেস্টে তুলনামূলক কম অভিজ্ঞতার বাংলাদেশকে কঠিন প্রতিপক্ষই ভাবছেন তিনি। গতকাল এমনটাই জানালে তিনি। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোহলি বলেন, ‘পরিশ্রম, সামর্থ্যরে সঠিক প্রয়োগ আর পারফরম্যান্সে শৃঙ্খলা ছাড়াা আপনি টেস্ট ম্যাচ জিততে পারবেন না। বাংলাদেশ দলে উঁচু মানের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আছে। বাংলাদেশের বিপক্ষে জিততে হলে আমাদের দলগতভাবে সেরা পারফরম্যান্সটাই করতে হবে।’ এই টেস্ট নিয়ে কোহলি বলেন, ‘এই ম্যাচেও আমাদের প্রস্তুতিটা একই থাকবে। মাঠেও একই পরিকল্পনা অনুসরণ করতে হবে। এখানে প্রতিপক্ষ কে, সেটি নিয়ে ভেবে লাভ নেই। এমন নয় যে বাংলাদেশ ভারতের জন্য সহজ প্রতিপক্ষ।’ বাংলাদেশের ব্যাটম্যানদের প্রশংসা করে কোহলি বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যাটিং হেলাফেলা করা যাবে না। টেস্টের এক দিনে সাড়ে ৩০০ বেশি রান করাটা দুর্দান্ত ব্যাপার। টেস্টে সারা দিনে ওভার প্রতি সাড়ে চার করে রান করাটাও বিশেষ কিছুই।’ বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকের করা একটি মতের বিরোধিতা করেছেন ভারত অধিনায়ক কোহলি। মুশফিক বাংলাদেশের টেস্ট অভিষেকের ১৬ বছর পর প্রথমবারের মতো ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলাটা ঐতিহাসিক না মানলেও, কোহলি এটা মানতে চান ঐতিহাসিক হিসেবেই। ভারতীয় এই অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে অনেকবারই খেলতে গিয়েছি। বাংলাদেশ ভারতে খুব বেশি বার আসেনি। দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে তো নয়ই। সুতরাং, অবশ্যই এটি ঐতিহাসিক এক মুহূর্ত।’ এই টেস্টের ধারাবাহিকতায় ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ভারতে আরও বেশি টেস্ট খেলতে যাবে বলেও বিশ্বাস করেন তিনি। কোহলি বলেন, ‘আশা করি ভবিষ্যতে ভারতের মাটিতে ধারাবাহিকভাবেই খেলতে আসবে বাংলাদেশ। ভারতের মাটিতে খেলতে আসাটা বাংলাদেশের জন্যও খুব ভালো। ভারত অবশ্যই ক্রিকেটের জন্য দারুণ এক জায়গা। আমি মনে করি এই সফরটা তারা উপভোগই করবে। বাংলাদেশের এই সফর অবশ্যই বিশেষ এক উপলক্ষ।’ বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসের সূচনালগ্নের সঙ্গী ভারত। সেই ভারতের মাটিতেই প্রথমবার টেস্ট খেলতে বাংলাদেশের লেগে গেল প্রায় দেড় যুগ! এতে চমকে গেছেন স্বয়ং বিরাট কোহলিও! ভারতীয় অধিনায়ক বলেন,ভারতের মাটিতে আরও বেশি সিরিজ পাওয়া উচিত বাংলাদেশের। কোহলির বিশ্বাস, বাংলাদেশকে পিছিয়ে রাখা হয়েছে। টেস্ট ক্রিকেটে এগোনোর মত যথেষ্ট সুযোগ বাংলাদেশ পায়নি, এখনও পাচ্ছে না। তিনি বলেন,‘আমার তো মনে হয় ওদের স্কিল যথেষ্টই আছে। সমস্যা হলো খুব বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ ওরা পাচ্ছে না। টেস্ট স্কোয়াড হিসেবে আত্মবিশ্বসটাও তাই অর্জন করতে পারছে না। খুবই মৌলিক ব্যাপার এটা। ওয়ানডেতে ওরা এত ভালো দল হয়ে উঠেছে কারণ প্রচুর ওয়ানডে খেলেছে। নিয়মিত খেলে। ওয়ানডেতে ওরা সব দলকেই হারিয়েছে; কারণ জানে এই ফরম্যাট কিভাবে খেলতে হয়। টেস্ট ক্রিকেট খুব বেশি না খেললে কখনোই মাইন্ডসেট বোঝা যায় না।’ ভারত অধিনায়কের বিশ্বাস, আরও বেশি টেস্ট খেলার সুযোগ পেলে এই সংস্করণেও দারুণ দল হয়ে উঠবে বাংলাদেশ। তিনি বলেন, ‘অনুশীলন যতোই করুন, ম্যাচ খেলা সবসময়ই ভিন্ন ব্যাপার। সামর্থ্য ওদের আছেই। কিন্তু মাইন্ডসেট একেক ফরম্যাটে একেকরকম থাকতে হয়। যত বেশি টেস্ট খেলবে, ততই ওরা এসব বুঝতে পারবে। আমি নিশ্চিত, আরও বেশি খেলার সুযোগ পেলে ওরাও দারুণ টেস্ট ক্রিকেটার হয়ে উঠবে, দারুণ দল হয়ে উঠবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ