ঢাকা, শনিবার 11 February 2017, ২৯ মাঘ ১৪২৩, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নারীর ক্ষমতায়ন অর্জনে রাজনৈতিক সদিচ্ছা প্রয়োজন -স্পীকার

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী,স্পীকার, সংসদের উপনেতা ও বিরোধী দলীয় নেতা সকলেই নারী। নারীর ক্ষমতায়ন ও সর্বস্তরে নারীদের সমঅধিকার অর্জন নিশ্চিতকল্পে প্রয়োজন রাজনৈতিক সদিচ্ছা, যার মাধ্যমে কার্যকর ও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করে নারী উন্নয়ন ও নারীর অর্থনৈতিক স্বাধীনতা নিশ্চিত করা সম্ভব।
গতকাল শুক্রবার ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের অমরাবতীতে এমআইটি গভ: স্কুল, সিপিএ ও আইপিও এর সহযোগিতায় অন্ধ্র প্রদেশের লেজিসলেটিভ এসেম্বলি ও অন্ধ্র প্রদেশ সরকারের আয়োজনে তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ন্যাশনাল উইমেনস পার্লামেন্ট (এনডব্লিউপি) এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অতিথি বক্তা হিসেবে বক্তৃতা দানকালে একথা বলেন।
সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় নারীর অংশগ্রহণ আবশ্যক উল্লেখ করে স্পীকার বলেন, রাজনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে নারীকে নেতৃত্বদানের সুযোগ করে দিতে হবে। তিনি বলেন, সুযোগ ও সক্ষমতা অর্জন এই দুয়ের মধ্যে সংযোগ স্থাপিত হলে ব্যাপক অর্থে সামাজিক পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে জাতিসংঘ ঘোষিত উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার অনেকগুলোই অর্জন করেছে। বিশেষ করে স্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়ন, শিশু ও জেন্ডার বৈষম্য নিরসনসহ অনেক ক্ষেত্রেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনি, নারীদের জন্য বিভিন্ন প্রকার ভাতা ব্যবস্থাসহ নানাবিধ পদক্ষেপের ফলে বাংলাদেশে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত নারীর উন্নয়ন হয়েছে।
আরবান ডেভেলপমেন্ট মন্ত্রী এম ভেঙ্কায়েয়াহ নাইডু সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। এছাড়া নোবেল বিজয়ী আধ্যাত্মিক গুরু এইচ, এইচ দালাই লামা গেস্ট অব অনার হিসেবে বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে অন্ধ্র প্রদেশ লেজিসলেটিভ এসেম্বলির স্পীকার ড. কোদেলা শিভা প্রসাদ রাও, অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী নারা চন্দ্রবাবু নাইডু এবং এমআইটি গভ: স্কুল এর প্রতিষ্ঠাতা রাহুল ভি. কারাদ বক্তৃতা করেন। তথ্য বিবরণী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ