ঢাকা, বুধবার 15 February 2017, ০৩ ফাল্গুন ১৪২৩, ১৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পাট অধ্যাদেশ বিল সংসদে পাস

সংসদ রিপোর্টার : পাট অধ্যাদেশ ১৯৬২ রহিত করে নতুন আইন করার লক্ষ্যে পাট বিল পাস করা হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেল জাতীয় সংসদে পাট বিল-২০১৭ পাসের প্রস্তাব করেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। বিলটির ওপর জনমত যাচাই-বাছাই করার প্রস্তাব দেন জাতীয় পার্টির একাধিক সংসদ সদস্য। যদিও তাদের একটি প্রস্তাবও গ্রহণ করা হয়নি। পরে স্পিকার বিলটি পাসের প্রস্তাব কণ্ঠভোটে দিলে তা সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়।
জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাবের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, পাট ও পাট খাতের উন্নয়নে ব্যাপক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। পাটকে কৃষি পণ্যের স্বীকৃতি দিয়ে চাষিদের নানা ধরনের প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। পাটের যথাযথ মূল্য নিশ্চিত করা হয়েছে। বিশ্বের ৩০টি দেশে পাট ও পাটজাত দ্রব্য রফতানি করা হচ্ছে। সরকারের এই পদক্ষেপের ফলে পাটের সেই সোনালী অতীত আবারও ফিরে আসবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
পাস হওয়া বিলে পাট ও পাটজাত পণ্য উৎপাদন ও প্রসার, গবেষণা ও পাটচাষে উদ্বুদ্ধ করতে সরকারের ক্ষমতা, পাট ও পাটজাত পণ্যের ব্যবসা উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে সরকারের ক্ষমতা, লাইসেন্স প্রদান, লাইসেন্স বাতিল, আপিল করা, আপিল বাতিল, মূল্য নির্ধারণ, বেলিং চার্জ, এজেন্ট ও ব্রোকার, প্রেস গুদাম ইত্যাদি অধিগ্রহণ করে বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।
এছাড়া বিলে পাট ও পাটজাত পণ্যের ওপর উন্নয়ন ফি আরোপ, উন্নয়ন তহবিল গঠন, চুক্তি নিবন্ধন, বিক্রয় নির্দেশ ও নিষিদ্ধকরণের ক্ষমতা, পাটখড়ি থেকে বাণিজ্যিক পণ্য উৎপাদন, ক্রয়-বিক্রয় সম্পর্কে নির্দেশনা প্রদানের ক্ষমতা, চুক্তি প্রতিপালন নিশ্চিত করার ক্ষমতা, অপরাধ ও দ-ের বিধানসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিধান রাখা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ