ঢাকা, রোববার 19 February 2017, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৩, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

২১ ফেব্রুয়ারি নয় ৮ ফাল্গুন হোক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

আমরা বাংলায় কথা বলি, ইংরেজিতে নয়। এই বাংলায় কথা বলার জন্যই তো ১৩৫৮ সালের ৮ ফাল্গুন (১৯৫২) ভাষা আন্দোলনে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে আঃ সালাম, বরকত, রফিক, শফিক, আঃ জব্বাররা কেড়ে এনেছিল কথা বলার অধিকার। ৎকিন্তু ১৩৫৮ সাল থেকে ১৪২৩ সালের (২০১৭) দীর্ঘ ৬৫ বছর পরিক্রমায় কারোরই বোধোদয় হলো না কেন যে, যে বাংলার জন্য জীবন দিলাম আমরা ৮ ফাল্গুন, সেই ভাষা দিবসটি পালন করছি আমরা ২১ ফেব্রুয়ারি ইংরেজি তারিখে।
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামকে আমরা যেখানে স্মরণ করছি ১১ জ্যেষ্ঠ, কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে আমরা স্মরণ করছি ২৮ শ্রাবণ; সেখানে ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবস পালন করে স্ববিরোধিতার পরিচয় দিচ্ছি কী কারণে বা কার স্বার্থে? কেন ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ২১শে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি’ গেয়ে প্রভাতফেরি করে চলেছি?
বাংলাভাষার মতো জীবন দিয়ে আমরা যদি ৮ ফাল্গুনকে ভুলে এভাবে ২১ ফেব্রুয়ারি নিয়ে মাতম করি ও শহীদদের স্মরণ করি তাহলে ভাষা শহীদদের আত্মা কি সত্যিই শান্তি পাবে?
অথচ ‘মাগো ৮ই ফাল্গুনের কথা আমরা ভুলি নাই’ এরূপ একটি গানও ভাষা শহীদদের স্মরণে রচনা করেছিলেন ও গেয়েছিলেন মরহুম গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী আঃ লতিফ। যেমনÑ আঃ গাফফার চৌধুরী লিখেছেন ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ২১শে ফেব্রুয়ারি’।
আমরা জানি যে, একটি জাতি তার স্বকীয়তা দিয়েই বড় হয়। সম্মানিত হয় ও পরিচিত হয়। কেন তাহলে আমরা বাংলার জন্য জীবন দিয়ে ভাষা দিবস পালন করবো ২১ ফেব্রুয়ারি! এমন স্ববিরোধিতা পরিহার করার সময় এসেছে আজ। স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরও আমরা এভাবে বৈপরীত্য নিয়ে অগ্রসর হতে চাই না।
তাহলে ভাষা শহীদরা আমাদের ক্ষমা করবে না এবং আমরাও পড়ে থাকবো পেছনের কাতারে।
তাই স্ববিরোধিতা পরিহার করে আগামী বছর থেকে ৮ ফাল্গুন হোক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। সরকারের নিকট এটাই সবার দাবি।
-শামসুল করীম খোকন, বেগুনবাড়ী, তেজগাঁও, ঢাক-১২০৮।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ