ঢাকা, রোববার 19 February 2017, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৩, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা: বরিশালের আগৈলঝাড়ায় স্কুল পড়–য়া সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে আগৈলঝাড়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকসহ  বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সন্তানহারা এক পিতা। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গৈলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র ও উত্তর শিহিপাশা গ্রামের জসিম সরদারের ছেলে সোলায়মান সরদার (১৫) গত ২৮ জানুয়ারী একই এলাকার মৃত আসমান আলী সরদারের পুত্র শহীদ আঃ রব সেরনিয়াবাত ডিগ্রী কলেজের সাবেক ভিপি মোঃ সেলিম সরদার ওরফে কালু সেলিম এর বিবাহোত্তর বৌভাত অনুষ্ঠান দেখার জন্য তাদের বাড়িতে যায়। বিয়ে অনুষ্ঠানে আনন্দ করার জন্য সাবেক ভিপি সেলিম ও তার বন্ধুবান্ধবসহ একাধিক মাদকসেবীরা অবৈধ মাদক জাতীয় নেশা দ্রব্য আমদানী করে। উল্লেখিত তারিখে সাবেক ভিপি ও বন্ধুরা মাদকসেবন পূর্বক তার ভাতিজা মো. নবুয়ত সরদার (সজল) কে দিয়ে কোমল পানীয় বলে প্ররোচনা মূলক ভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে ছাত্র মো. সোলায়মান সরদারকে বিষাক্ত ¯প্রীট পান করায়। পরবর্তীতে বিষক্রিয়ায় তার অবস্থার অবনতি হলে আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তার উন্নত চিকিসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন এবং পথিমধ্যে তার মৃত্যু ঘটে। জসিম সরদার আরো জানান, ছেলের অকাল মৃত্যুতে তিনি মানুষিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ে এবং কি কারণে তখন তার মৃত্যু হয়েছে বিস্তারিত ভালভাবে না জেনে ময়না তদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করা হয়।
পরবর্তীতে এলাকার লোক উল্লেখিত বিষয়টি জানতে পেরে আমাকে জানালে আমি গত ২ ফেব্রুয়ারী আগৈলঝাড়া থানায় সাবেক ভিপি সেলিম সরদার, সহিদ সরদার, নবুয়ত সরদার, পারভীন বেগমসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনকে আসামী করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও অদ্যাবধি কোন আইনগত ব্যবস্থা প্রশাসন নিচ্ছেনা। উল্লেখ্য, সেলিম সরদার ওরফে কালু সেলিম ২০০৪ সালে ফেন্সিডিলসহ গৌরনদীতে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এবং ওই ঘটনায় সে দীর্ঘদিন হাজত বাস করেছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে এলাকায় মাদক আমদানী, মাদক ব্যবসা, ও মাদক সেবনসহ বিস্তর অনৈতিক অভিযোগ রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ