ঢাকা, বুধবার 22 February 2017, ১০ ফাল্গুন ১৪২৩, ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সিরিয়ায় ৪৪ আইএস হত্যার দাবি তুরস্কের

২১ ফেব্রুয়ারি, রয়টার্স/পার্সটুডে : সিরীয় শহর আল বাব-এ ৪৪ আইএস সদস্য নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে তুরস্ক। গতকাল মঙ্গলবার দেয়া দেশটির সেনাসূত্রের বিবৃতির বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এই খবর জানিয়েছে।
রয়টার্সের খবরে সেনাসূত্রের বরাত দিয়ে জানানো হয়, মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলা এবং তুর্কি বাহিনীর সমর্থিত অভিযানে গত সোমবার মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) ওই জঙ্গিরা নিহত হন। সেসময় এক তুর্কি সেনা নিহত এবং অপর দু’জন আহত হন বলে দাবি করে তুর্কি সেনাসূত্র।
রয়টার্সের খবরে বলা হয়, আল বাব-এর একটি অঞ্চলকে ল্যান্ড মাইন আর বিস্ফোরকমুক্ত করতে গিয়ে ওই সেনারা হতাহত হন। ক’দিন আগে তুর্কি সেনাসূত্রের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের শহর আল-বাবের দখল নেয়ার খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে তুরস্কের সেনাবাহিনী।
গত আগস্টে অভিযান শুরুর পর থেকে তুর্কি সেনাবাহিনীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য ছিল সীমান্ত থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এ আল-বাব শহর। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান গত বৃহস্পতিবার জানিয়েছিলেন, তুর্কি সেনাবাহিনী আইএসের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত সিরীয় অঞ্চল আল বাবের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছে। এরদোগান দাবি করেছিলেন, আল বাবের দখল নেয়া এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।
আর তুর্কি সেনাবাহিনীর সাম্প্রতিক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আল-বাব অঞ্চলের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নেয়ার অভিযান প্রায় শেষ পর্যায়ে। দায়েশ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর শক্ত প্রতিরোধ বলতে গেলে ভেঙে গেছে।’
তুর্কিদের বিশ্বাস নতুন বছরের আগের দিন ইস্তাম্বুলের নাইটক্লাবে নৃশংস হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল এই আল-বাব ও রাক্কা থেকে। এরদোয়ান সম্প্রতি বলেছেন, আল বাব শহরকে আইএস জঙ্গিদের হাত থেকে মুক্ত করা নয় কেবল, সিরিয়ায় তুর্কি সেনা হস্তক্ষেপের প্রকৃত উদ্দেশ্য রাকার সামগ্রিক সীমান্ত অঞ্চল থেকে জিহাদিদের দমন করা। বাহরাইন, সৌদি আরব এবং কাতার সফরের জন্য দেশ ত্যাগের সময় এসব মন্তব্য করেন এরদোয়ান। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আমাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য ৫০০০ কিলোমিটারের ওই অঞ্চলকে জঙ্গিমুক্ত করা।
দীর্ঘদিন ধরে সিরিয়ায় বেসামরিকদের জন্য একটি মুক্তাঞ্চল গড়ে তোলার ব্যাপারে আলোচনা চলছে।
গতকাল মঙ্গলবার রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগানের মধ্যে এক ফোনালাপে আইএসবিরোধী যৌথ লড়াইয়ের অঙ্গীকার করেন। সিরিয়ার আল-বাব ও রাকা শহরে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন আইএস’র বিরুদ্ধে যৌথভাবে লড়াইয়ের ব্যাপারে সম্মত হন তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ