ঢাকা, বুধবার 22 February 2017, ১০ ফাল্গুন ১৪২৩, ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফতুল্লায় ভালো অবস্থানে ওয়ালটন বিকেএসপিতে চাপে বিসিবি নর্থ জোন

স্পোর্টস রিপোর্টার: ফতুল্লায় বিসিএলের ম্যাচে তৃতীয় দিন শেষে ভালো অবস্থানে আছে ওালটন সেন্ট্রাল জোন। প্রথম ইনিংসে লিড পাওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসে বড় সংগ্রহের পথে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নর ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। ফলে ফতুল্লায় ব্যাট-বলের অসাধারণ পারফরম্যান্স করায় নিয়ন্ত্রণ এখন দলটির হাতে। তাদের রানের পাহাড়ে চাপা পড়েছে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। ফতুল্লায় তৃতীয় দিন শেষে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৬৬ রান। প্রথম ইনিংসে ১১৭ রানের লিডসহ মোট ৩৮৩ রানে এগিয়ে আছে ওয়ালটন। জাতীয় দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কাজী নুরুল হাসান সোহান ৩২ ও তাইবুর পারভেজ ৫৫ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে এ দুই ব্যাটসম্যান ৯৭ বলে করেছেন ৯৪ রান। গতকাল পড়ন্ত বিকেলে অনেকটা ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাটিং করেছেন তারা। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়ালটনকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন মার্শাল আইয়ুব। ডানহাতি মিডল অর্ডার এ ব্যাটসম্যান করেছেন ৭৩ রান। ১২৬ বলে ৮ বাউন্ডারিতে নিজের ইনিংসটি সাজান মার্শাল। মুমিনুলের বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে ইসলামী ব্যাংকের বোলারদের কড়া শাসন করেন ওয়ালটনের সহ-অধিনায়ক। এছাড়া মেহরাব হোসেন জুনিয়র ১৩১ বলে ৩৮ এবং আব্দুল মজিদ ৩২ বলে করেছেন ৩৬ রান। গতকাল সকালে ৬ উইকেটে ১১৪ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে ইসলামী ব্যাংক। মাত্র এক ঘন্টায় শেষ চার উইকেট হারিয়ে ২১১ রানে অলআউট হয় তারা। ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন আবুল হাসান। শুভাগত হোমের বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হওয়ার আগে ৫৭ বলে ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৪৮ রান করেন আবুল হাসান। শেষ তিন ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন সাকলায়েন সজীব (৪), আবু জায়েদ (২) ও ইবাদত হোসেন (০)। আগের দিন ৪ উইকেট পেলেও শরীফ আজ কোনো উইকেট পাননি। তবে তার থ্রোতে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন ইবাদত হোসেন। দুই স্পিনার শুভাগত হোম ও মোশাররফ হোসেন রুবেল ২টি করে উইকেট নেন। দিনের অপর ম্যাচে বিকেএসপিতে চাপে আছে বিসিবি নর্থজোন। প্রাইম ব্যাংকের করা ৫০১ রানের জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে ২৪২ রানে গুটিয়ে যায় বিসিবি নর্থ জোন। ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেও ভালো অবস্থানে নেই বিসিবির দলটি। ১৫৪ রান তুলতেই ২ উইকেট হারিয়েছে তারা। এখনও ১০৫ রানে পিছিয়ে তারা। হাতে আছে ৮ উইকেট। বিকেএসপিতে আগামীকাল রোমাঞ্চকর কিছু না হলে ম্যাচ জয়ের সম্ভাবনা বেশি প্রাইম ব্যাংকের। তবে এখন পর্যন্ত ম্যাচের পুরো নিয়ন্ত্রণ প্রাইম ব্যাংকের কাছে। ফরহাদ হোসেন ৬২ ও নাঈম ইসলাম ২৪ রানে অপরাজিত থেকে গতকাল মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছেন। ১৫৪ রান সংগ্রহ করতে দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেট হারিয়েছে তারা। নাজমুল ইসলাম ১৫, জুনায়েদ সিদ্দীক ৪৬ রানে সাজঘরে ফিরেছেন। একটি করে উইকেট নেন মোসাদ্দেক হোসেন ও নাহিদুল ইসলাম। এর আগে ৪ উইকেটে ১০৭ রানে দিন শুরু করেন নাসির হোসেন (৫) ও ধীমান ঘোষ (৮)। বেশিদূর এগোয়নি তাদের জুটি। নাসির হোসেন ২২ রানে আল-আমিনের বলে আউট হন। ক্রিজে আসা আরিফুল হক বেশিক্ষণ টিকেননি। স্পিনার নাহিদুলের বলে আউট হন ১১ রানে। এরপর সোহরাওয়ার্দী শুভ (৭) উইকেট নিয়ে পাঁচ উইকেটের স্বাদ নেন নাহিদুল। একাই লড়ে যান ধীমান ঘোষ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন তিনি। এছাড়া শেষ দিকে ২২ রান করে অপরাজিত থাকেন শফিউল ইসলাম। বল হাতে নাহিদুলের ৫ উইকেটের সঙ্গে ৩ উইকেট নেন আব্দুর রাজ্জাক। ২টি উইকেট নিয়েছেন আল-আমিন হোসেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ