ঢাকা, বুধবার 23 October 2019, ৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

‘দীর্ঘ এক বছরের পরিকল্পনায় খুন করা হয় এমপি লিটনকে’

অনলাইন ডেস্ক: দীর্ঘ এক বছরের পরিকল্পনায় ঠাণ্ডা মাথায় সুন্দরগঞ্জের এমপি লিটনকে খুন করেন অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল ডা. আব্দুল কাদের খান। এমপি পদ দখলের জন্য আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির নেতা শামীম হায়দার পাটোয়ারীকেও খুনের ছক আঁকেন তিনি। লিটন হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামিদের জবানবন্দি থেকে এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছেন গাইবান্ধার পিপি। খবর সময় টিভি নিউজের।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের বিলাসবহুল এই বাড়িটির মালিক জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল ডা. আব্দুল কাদের খান। বগুড়াতেও একটি বহুতল ভবন আছে তার।

২০০৪ সালে সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেয়ার পর ২০০৮ সালে সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন কাদের খান। এলাকাবাসী জানায়, শুধুমাত্র গাইবান্ধায় তার জমি রয়েছে ৩৫ একরের বেশি। আর বগুড়ার বাড়ি তৈরি করা হয়েছে এক একর জমির উপর।

কিন্তু এসব সম্পত্তির তথ্য গোপন করে ২০১৪ সালে নির্বাচন কমিশনে তার দেয়া হলফনামায় স্থাবর অস্থাবর মিলিয়ে তার সম্পদের পরিমাণ দেখিয়েছেন মাত্র ১ কোটি ১৫ লাখ ২০ হাজার টাকার। আর তার স্ত্রীর সম্পদের পরিমাণ দেখিয়েছেন ৬৯ লাখ টাকা। বিত্তশালী এই মানুষটির বিরুদ্ধে ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় দুর্নীতির অভিযোগও রয়েছে দুদকের কাছে।

সবশেষ সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলার তদন্তে উঠে আসে কাদের খানের নাম।

আব্দুল কাদের আরো কোন অপরাধের সঙ্গে জড়িত কি না তা তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন গাইবান্ধা পুলিশ সুপার আশরাফুল ইসলাম।

গত ৩১ শে ডিসেম্বর এমপি লিটনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় কর্নেল আব্দুল কাদের খান ছাড়াও চার জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে ১০ দিনের রিমান্ডে আছেন আব্দুল কাদের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ