ঢাকা, রোববার 26 February 2017, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৩, ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ন্যাম হত্যায় গ্রেফতারি পরোয়ানা হবে কোরীয় কূটনীতিকের বিরুদ্ধে

২৫ ফেব্রুয়ারি, রয়টার্স: কিম জং ন্যাম হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা উত্তর কোরীয় কূটনীতিক স্বেচ্ছায় পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা না করলে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হবে বলে জানিয়েছে মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষ।
গতকাল শনিবার সেলানগর রাজ্য পুলিশের প্রধান আব্দুল সামাহ ম্যাট জানিয়েছেন, এগিয়ে আসার জন্য ওই কূটনীতিককে ‘যৌক্তিক’ সময় দেয়া হবে, ওই সময় শেষে পরবর্তী পদক্ষেপ নিবে পুলিশ।
গত বুধবার মালয়েশিয়া জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সৎ ভাই ন্যামের হত্যাকা-ের ঘ্টনায় উত্তর কোরিয়ার কুয়ালালামপুর দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব ৪৪ বছর বয়সী হায়ন কওয়াং সোংকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় তারা।
সামাহ জানিয়েছেন, উল্লেখিত ব্যক্তি যদি পুলিশকে সহযোগিতা না করেন তাহলে মালয়েশিয়ার আইনানুযায়ী নোটিশ ইস্যু করবে পুলিশ এবং তাকে তদন্তকারী দলের সামনে উপস্থিত হতে ‘বাধ্য’ করবে।
এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ওই নোটিশ পেয়েও যদি তিনি উপস্থিত না হন, তখন আমরা আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।’ 
এই হত্যার ঘটনায় এই কূটনীতিকসহ আট উত্তর কোরীয় নাগরিককে খুঁজছে মালয়েশীয় তদন্তকারীরা। এদের মধ্যে একজনকে আটক করেছে মালয়েশীয় পুলিশ, অপর চারজন উত্তর কোরিয়ার পালিয়ে গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে অপর দুজন এখনও মালয়েশিয়ায় পালিয়ে আছেন।
১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ন্যামকে ‘ভিএক্স নার্ভ এজেন্ট’ নামের রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করে হত্যা করা হয় বলে শুক্রবার জানিয়েছে মালয়েশীয় পুলিশ। জাতিসংঘ এই রাসায়নিক অস্ত্রটিকে গণবিধ্বংসী অস্ত্র হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে। 
এই হত্যার ঘটনায় এখন পর্যন্ত চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ভিয়েতনাম ও ইন্দোনেশিয়ার দুই নারী রয়েছেন। এরাই বিমানবন্দরে ন্যামকে ‘ভিক্স নার্ভ এজেন্ট’ প্রয়োগ করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
পুলিশ জানিয়েছে, তাদের মধ্যে একজন ভিএক্স-র প্রভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন এবং সমানে বমি করছেন।
এছাড়া কর্তৃপক্ষ বুধবার এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সম্পর্কিত কুয়ালালামপুরের এক অভিজাত এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি চালিয়েছে বলেও জানিয়েছেন সামাহ। রাসায়নিকের খোঁজে তদন্তকারীরা ওই অ্যাপার্টমেন্টে এখনও তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ