ঢাকা, রোববার 26 February 2017, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৩, ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পিলখানা হত্যাকান্ডর সাজা কার্যকর সময়ের ব্যাপার -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী 

 

স্টাফ রিপোর্টার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, মহাজোট সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পর প্রথম যে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে তা হলো পিলখানা বিদ্রোহ। আমরা এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছি। ইতোমধ্যে অভিযুক্তদের বিচারের মুখোমুখি করেছি। সাজা কার্যকরের কাছাকাছি। পিলখানা হত্যাকান্ডে জড়িতদের ফাঁসি কার্যকর সময়ের ব্যাপার মাত্র। যারা এখনও পলাতক তাদের বিচারের আওতায় আনার কার্যক্রম চলমান। 

পিলখানা ট্র্যাজেডির ৮ বছর পূর্তি উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকালে রাজধানীর বনানীর সামরিক কবরস্থানে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ সব কথা বলেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, যারা কারান্তরীণ তাদের অনেকেই সাজা ভোগ করতে শুরু করেছেন। আর যাদের মৃত্যুদ- দেয়া হয়েছে তাদের সাজা বাস্তবায়নে কার্যক্রম চলমান আছে। শহীদদের পরিবারের পক্ষ থেকে এ দুই দিনকে জাতীয় শোক দিবস ঘোষণার দাবির বিষয়ে প্রশ্ন করলে মন্ত্রী বলেন, আমরা এই দিনটিকে যথাযোগ্যভাবে পালন করে আসছি। 

এ সময় রাষ্ট্রপতির পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মো. সারোয়ার হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদিন, স্বরাষ্ট্র সচিব কামাল আহমেদ, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন। এর পর নিহত সেনা কর্মকর্তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। 

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টার পরপরই রাজধানীর পিলখানায় তৎকালীন বিডিআর সদর দফতর এক নারকীয় হত্যাকা- চালানো হয়। সেদিন ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জন প্রাণ হারান। 

সাত দিনে পাসপোর্ট পাবেন প্রবাসীরা: সাত দিনের মধ্যে হাতে পাসপোর্ট পাবেন প্রবাসীরা। এ লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক কুরিয়ার সংস্থা ফেডেক্সের সঙ্গে চুক্তি সই করেছে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতর। গতকাল শনিবার বহিরাগমন ও পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আগারগাঁও পাসপোর্ট অধিদফতরের কার্যালয়ে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, পূর্বের নিয়মে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রবাসীদের কাছে পাসপোর্ট পাঠাতে ২ থেকে ৩ মাস সময় লাগতো। নতুন এ চুক্তির পর তিন দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট দূতাবাসে পাসপোর্ট পৌঁছে যাবে। সর্বোচ্চ সাত দিনের মধ্যে পাসপোর্ট হাতে পাবেন প্রবাসীরা। পাসপোর্ট পেতে দুর্নীতি ও পুলিশ ভেরিফিকেশনের কারণে হয়রানির ঘটনার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী বলেন, ‘দু’একজন দুর্নীতি করে বা দুর্নীতি করার অপচেষ্টা করে। তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থাও নেয়া হয়। আর যিনি পাসপোর্ট নিচ্ছেন তার সম্পর্কে জানতে ভেরিফিকেশনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মাসুদ রেজওয়ান। এছাড়া বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের কর্মকর্তাদের নিয়ে অধিদফতরের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ