ঢাকা, শুক্রবার 03 March 2017, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শাবিতে তুচ্ছ ঘটনায় ছাত্রলীগের  দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২০

 

  সিলেট ব্যুরো: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাবি শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে হাতাহাতির জের ধরে গত বুুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শাহপরাণ হলে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজের অনুসারীরা এ সংঘর্ষে জড়ায়। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে শাখা ছাত্রলীগের বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আশিকুজ্জামান রূপককে মারধরের অভিযোগ উঠে শাখা ছাত্রলীগের উপ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক লক্ষণ চন্দ্র বর্মণ, বাছির, মুনকির, হিমেলের বিরুদ্ধে। এর মধ্যে রূপক ইমরান খানের অনুসারী এবং অপর চারজন যুগ্ম সম্পাদক সবুজের অনুসারী। এ বিষয়ে রূপক বলেন, প্রধান ফটকে আমাকে ডেকে নিয়ে কোনো কিছু না বলেই লক্ষণ, বাছির, মুনকির, হিমেল আমার ওপর হামলা চালায়। তবে লক্ষণ বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, তিনি সেখানে ছিলেন না। হট্টগোল শুনার পর সেখানে যান। পরবর্তীতে এ ঘটনার জের ধরে শাহপরাণ হলে রাত এগারোটার দিকে সশস্ত্র সংঘর্ষে জড়ায় ঐ দু’টি গ্রুপ। ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হন। উভয়পক্ষের আহতরা হলেন- মনিরুজ্জামান মনির, সুমন তালুকদার, মৃন্ময় দাস ঝুটন, উজ্জ্বল সাহা, নাহিদ, পিয়াস, মুনকির, জয়, ইয়ামিন, পাপলু, শিহাব, আদনান শামসুল, জাহিদ, জুবায়ের, মনোয়ার হোসেন, সিমান্ত, ফিরোজ, প্রমুখ।

শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজ বলেন, ভুল বোঝাবুঝি থেকে সূত্রপাত এ হামলার বিষয়টি মীমাংসার উদ্যোগ নিলেও অন্যপক্ষ বাতি নিভিয়ে হামলা চালায়। ফলে মীমাংসার উদ্যোগ ভ-ুল হয়ে যায়। এ বিষয়ে সাধারণ সম্পাদক ইমরান খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যারা সংঘর্ষের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে শাহপরাণ হলের প্রভোস্ট শাহেদুল হোসাইন জানান, রাতের ঘটনায় ছাত্রনেতাদের সাথে ফোনে কথা বলে মীমাংসার চেষ্টা করা হয়েছে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ