ঢাকা, শুক্রবার 18 October 2019, ৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করছে জার্মানি : এরদোগান

অনলাইন ডেস্ক: তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান জার্মানিকে সন্ত্রাসবাদের প্রতি সমর্থনের জন্য অভিযুক্ত করেছেন। 

তুরস্কের সাম্প্রতিক ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে জড়িত সন্দেহভাজন সেনা কর্মকর্তা এবং কুর্দি বিদ্রোহীদেরকে জার্মানিতে আশ্রয় প্রদান এবং দেশটিতে বৈধ তুর্কি প্রবাসীদের ন্যায়সংগত কমিউনিটি মিটিংয়ের অনুমোদন বাতিলের প্রতিক্রিয়ায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

এরদোগানের নির্বাহী ক্ষমতার বিষয়ে তুর্কি জনগণের মতামত গ্রহণের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিতব্য গণভোটকে সামনে রেখে তুর্কি কমিউনিটির পূর্ব নির্ধারিত জনসভা বাতিল করে দেয় জার্মান সরকার। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় এরদোগান ইস্তাম্বুলে বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদকে আশ্রয়-প্রশ্রয় ও সমর্থন দেয়ার জন্য জার্মানির বিচার করা উচিত।’

আগামী ১৬ এপ্রিল তুরস্কে এই গণভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। 

জার্মানির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় গ্যাগেনাউ শহরে ওই গণভোটে এরদোগানের পক্ষে প্রবাসী তুর্কি কমিনিউনির লোকজনের সমাবেশ করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সমাবেশের অনুমতি বাতিল করে নগর কর্তৃপক্ষ। এরপর জার্মানির আরো একাধিক শহরে এ ধরনের সমাবেশের অনুমতি বাতিল করা হয়।  এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার জার্মান রাষ্ট্রদূতকে তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান অভিযোগ করেন, জার্মানি যেখানে তুরস্কের পিকেকে বিদ্রোহীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে তখন আঙ্কারার বৈধ সরকারের পক্ষে সমাবেশ করার অনুমতি দিচ্ছে না। কুর্দি গেরিলা গোষ্ঠী পিকেকে’কে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে ঘোষণা করেছে আঙ্কারা।

জার্মানিতে ১৪ লাখ তুর্কি নাগরিক বসবাস করেন। এরদোগান সরকার এসব মানুষকে আসন্ন গণভোটের পক্ষে ভোট দেয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে জনসমাবেশ করতে চেয়েছিলেন যেখানে একাধিক তুর্কি মন্ত্রী বক্তব্য রাখতে চেয়েছিলেন।  কিন্তু সে অনুমতি বাতিল করার পর এখন আঙ্কারা অভিযোগ করছে, দেশটির আসন্ন গণভোটে ‘না’ ভোটকে জিতিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে জার্মানি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ