ঢাকা, মঙ্গলবার 07 March 2017, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নানা সমস্যায় জর্জরিত মেঘনার চেঙ্গাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

মেঘনার চেঙ্গাকান্দি সরকারি প্রাঃ বিদ্যালয়

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) সংবাদদাতা: মেঘনা উপজেলার চেঙ্গাকান্দিতে গত জানুয়ারি মাসে প্রথমবারের মত নতুন একাডেমী ভবনে চালু হয়েছে শিক্ষাকার্যক্রম। শুরুতেই নানা সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। এখানে প্রাক-প্রাথমিক ও প্রথম শ্রেণী, এই দুটি শ্রেণীতে পড়াশোনা করছে পঞ্চাশ জন শিক্ষার্থী। সরকারী ভাবে এই স্কুলে একজন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। শিক্ষক স্বল্পতা ও নানা সমস্যা  বিষয়ে  গত ১৬ ফেব্রুয়ারী উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় মাসিক সভায় ব্যাপক আলোচনা হয়। সমস্যা গুলো হচ্ছে বিদ্যালয়টিতে বিদ্যুৎ নেই, মাঠ ও নলকূপ নেই, বাথরুম ব্যবহারের অযোগ্য ও  শিক্ষক অপ্রতুলতায় পড়াশোনার ব্যাঘাত ঘটছে। ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে এলজিইডির অর্থায়নে একাডেমিক ভবনের সাথে নির্মিত হয় দুই রুমের বাথরুম, কিন্তু প্রবেশদ্বারের মাটি ধসে যাওয়ায় এটি ব্যবহার করা যাচ্ছে না। পাশাপাশি নলকূপের মাটি ধসার কারণে এটিও ভেঙ্গে গেছে। স্কুলের পূর্ব পাশে প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণ না হলে স্কুলটির মাঠ, বাথরুম ও নলকূপ রক্ষা করা যাবে না বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। এ ছাড়া বিদ্যুৎ না থাকায় ফ্যান, লাইট তথা মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ বন্ধ রয়েছে। ২০১২ সালে স্কুলটি বেসরকারি রেজিস্টার্ড হিসাবে যাত্রা শুরু করে। স্কুলটির দাতা হিসাবে বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোহাম্মদ শামীম ভূঞা  ও তৎকালীন ইউপি সদস্য মোহাম্মদ সফরআলীর চেষ্টায় যাতায়াতের জন্য মাটির রাস্তা সরকারি বরাদ্দে শুরু করলেও এই রাস্তা বর্তমানে ভেঙ্গে যাতায়াতে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। স্কুলটির সভাপতি বিশিষ্ট সমাজ সেবক ব্যাংক কর্মকর্ত মোহাম্মদ রুহুল আমিন সমস্যা সমাধানে যথাযথ কর্তৃপক্ষের প্রতি আবেদন জানিয়েছেন। এ বিষয়ে মেঘনা উপজেলার শিক্ষা অফিসার আরিফুল ইসলাম জানান, তিনি স্কুলটিতে যেতে না পারলেও সহকারী শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শাহ আলম সহ সংশ্লিষ্টদের পক্ষ থেকে সমস্যার কথা শুনেছেন এবং তা সমাধানে চেষ্টা করছেন। স্কুল কমিটির পক্ষ থেকে স্থানীয় সাথী আক্তার নামে এক মহিলাকে ক্লাশ নিতে দায়িত্ব দেওয়ায় প্রধান শিক্ষক অফিসিয়াল কাজে স্কুলে না থাকলেও তিনি ক্লাশ চালিয়ে নেন। তবে আরেক জন শিক্ষক প্রেষণে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, ওই শিক্ষক অচিরেই দায়িত্ব পালন করবেন বলে শিক্ষা অফিসার জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ