ঢাকা, মঙ্গলবার 07 March 2017, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজশাহী সংবাদ

রাজশাহী অফিস: রাজশাহীতে সাবেক শ্যালকের ছুরিকাঘাতে ভগ্নিপতি নিহতের ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে মহানগরীর মতিহারের কাজলা  কেডিক্লাব পশ্চিমপাড়া এলাকায় সাবেক শ্যালকের ছুরিকাঘাতে প্রকাশ্যে খুন হন তার ভগ্নিপতি বিপ্লব  হোসেন (২৮)। বিপ্লব কাজলা এলাকার এরশাদ আলীর  ছেলে। অভিযুক্ত রনির বাড়িও একই এলাকায়। রনি ও বিপ্লব দুই বন্ধু ছিলেন। প্রায় আট বছর আগে বিপ্লব ভালোবেসে রনির ছোট বোন লিজা খাতুনকে বিয়ে করেন। কিন্তু এ বিয়ে মেনে নেননি রনি ও তার পরিবার। চার বছর আগে বিপ্লব ও লিজার বিচ্ছেদও ঘটে। চাকরির সুবাদে লিজা এখন তার সাত বছর বয়সী মেয়ে অংকিতাকে নিয়ে চট্টগ্রামে থাকেন। তবে লিজা বাড়ি এলে বিপ্লবের সঙ্গে তার যোগাযোগ হতো। এ নিয়ে বিপ্লবের সঙ্গে ফের দ্বন্দ্ব শুরু হয় রনির। এরই সূত্র ধরে শুক্রবার বিকেলে লিজার বাড়ির সামনে গিয়ে খুন হন বিপ্লব হোসেন। মতিহার থানার পুলিশ জানায়, নিহতের বড় ভাই আসাদ জামান ওরফে বুলবুল বাদী হয়ে থানায় মামলাটি করেছেন। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলায় তিনজনকে আসামী করা হয়েছে। আসামীরা হলেন, নিহত বিপ্লবের সাবেক শ্বশুর হাবিবুর রহমান (৫০), তার  ছেলে রনি আহমেদ (২৮) ও তাদের প্রতিবেশী সাইদুর রহমান (৪০)। পুলিশ আরও জানায়, শুক্রবার  বিকেলে এ হত্যাকাণ্ডের পর ওই বাড়ির সবাই পালিয়ে গেছেন। তবে তাদের ধরতে সম্ভাব্য স্থানগুলোতে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকেই অভিযান চালায় পুলিশ।
গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
রাজশাহী মহানগরীর হাতেম খাঁ এলাকা থেকে তৃষ্ণা ইসলাম (২০) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি ওই এলাকার বাবুল ইসলামের স্ত্রী ও নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজের অনার্স প্রথমবর্ষের শিক্ষার্থী।
গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার পুলিশ জানায়, তৃষ্ণা আত্মহত্যা করেছে না তাকে হত্যা করা হয়েছে সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এলাকাবাসী জানান, বাবুলের বাড়িতে চিৎকার শুনে তারা ছুটে যান। সেখানে গিয়ে প্রতিবেশীরা দেখতে পান ঘরে মধ্যে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় তৃষ্ণার লাশ ঝুলছে। ওই সময় তৃষ্ণার শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাদের জানায়, বাবুলের সঙ্গে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তৃষ্ণার ঝগড়া হয়। বিকেলে বাড়ি থেকে বাবুল বের হয়ে যাওয়ার পরই তিনি আত্মহত্যা করেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সন্ধ্যায় ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। তার শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
গৃহবধূর লাশ উদ্ধার
রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার পোল্লাকুড়ি গ্রাম থেকে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত নাজনীন (২৬) উপজেলার নওনগর গ্রামে পোল্লাকুড়ির আবদুল হান্নানের স্ত্রী। বাবার নাম মুন্তাজ আলী। ৬ বছর আগে আবদুল হান্নানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়েছিল। শনিবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। মোহনপুর থানার পুলিশ জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে শুক্রবার বিকেলে নাজনীন কীটনাশক খায়। এরপর প্রতিবেশীরা তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রামেক হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। সকালে লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ