ঢাকা, বুধবার 08 March 2017, ২৪ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাবরি মসজিদ ধ্বংসে জড়িত বিজেপি নেতাদের ছাড় নয় -সুপ্রিম কোর্ট

৭ মার্চ, এনডিটিভি : বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় বিপাকে পড়লেন বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদবানী। গত সোমবার দেশটির সুপ্রিমকোর্ট জানিয়েছে, বিজেপি নেতা ও লালকৃষ্ণ আদবানী ও অন্যান্যদের রেহাই দেয়া হবে না।
টেকনিক্যাল কারণে চাঞ্চল্যকর এই মামলা থেকে ১৩ জন বিজেপি ও হিন্দুত্ববাদী নেতাকে রেহাই দেয়া হয়েছিল।
সুপ্রিম কোর্ট এদিন ইঙ্গিত দিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা শুরু হতে পারে। পাশাপাশি বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার দীর্ঘসূত্রিতা নিয়েও উদ্বেগপ্রকাশ করেছে শীর্ষ আদালত।
বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদবানী, মুরলীমনোহর জোশী ও উমা ভারতীদের বিরুদ্ধে লখনৌ ও রায়বরেলীর আদালতে মামলা চলছে। তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের ধারায় চার্জ গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু টেকনিক্যাল কারণে চার্জ তুলে নেয়া হয়। সুপ্রিম কোর্ট এই দুটি মামলার যৌথ শুনানি হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে শীর্ষ আদালত।
আদবানীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের ধারায় চার্জ তুলে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল লখনৌয়ের নিম্ন আদালত। সেই নির্দেশ বহাল রাখে এলাহাবাদ হাইকোর্ট। সেই রায় চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিমকোর্টে মামলা দায়ের হয়।
১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো ওই মসজিদ ভেঙ্গে রামমন্দির তৈরি করার দাবিকে একটা রাজনৈতিক দাবিতে পরিণত করেন, যার মধ্যেই কয়েক লক্ষ উন্মত্ত হিন্দুত্ববাদী ৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয় বাবরি মসজিদ। আর তার পরেই ভারত জুড়ে চলেছিল দাঙ্গা, যাতে প্রায় দু’হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন। বিজেপির অনেকেই মনে করেন, দেশটির পরবর্তী রাষ্ট্রপতির চেয়ারে বসতে চান আডভানি। কিন্তু অভিযোগের ব্যাপারটি আবারো সামনে চলে আসলে এবছরের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে লড়াই করা তাঁর পক্ষে কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। তবে উত্তরপ্রদেশের শেষ পর্বের ভোটের আগে বাবরি মসজিদ মামলা এভাবে উঠে আসায় বিজেপির অনেকই খুশি। এ নিয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও নরেন্দ্র  মোদির দলের নেতারা মনে করছেন, এই বিতর্ক ভোটের মেরুকরণে সাহায্য করবে। উত্তরপ্রদেশে মেরুকরণের জন্য যাবতীয় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন  মোদি ও অমিত শাহেরা।
১৯৯২ সালে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের পরে রায়বরেলীতে করা এফআইআরে নাম রাখা হয়েছিল আদভানি, জোশীদের। কিন্তু রায়বরেলীর আদালত বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ থেকে আদভানিদের রেহাই দেয়। ইলাহাবাদ হাইকোর্টও নিম্ন আদালতের সেই রায়ই বহাল রাখে।
কিন্তু সিবি আই একে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে। এতে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট সোমবার বলেছে, ‘পদ্ধতিগত কারণে আদভানি ও অন্যদের বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগ খারিজ হতে দেব না। ১৩ জনের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ রয়েছে, তাকে নিয়ে আপনারা (সিবি আই) অতিরিক্ত চার্জশিট দিন।’
২০১০ সালে ইলাহাবাদ হাইকোর্ট আদভানিসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে বাবরি মসজিদ ধ্বংসে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ খারিজ করেছিল। তবে সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি পি সি ঘোষ ও আর এস নরিমানের যৌথ বেঞ্চ এই ১৩ জনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ খতিয়ে দেখার ইঙ্গিত দিয়েছেন। ২২ মার্চ মামলার পরবর্তী শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ