ঢাকা, বৃহস্পতিবার 09 March 2017, ২৫ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দৈনিক আমার দেশ ও নয়া দিগন্ত সম্পাদকসহ আট জনের নামে মামলা প্রত্যাহার

খুলনা অফিস : খুলনার কয়রায় দৈনিক আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান ও দৈনিক নয়া দিগন্ত’র সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিনসহ আটজনের বিরুদ্ধে মানহানীর মামলা প্রত্যাহার করে নিলেন দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি মেম্বর নাসের আলী মোড়ল। বুধবার কয়রার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানালে বিচারক জাহিদুল ইসলাম এ আবেদন গ্রহণ করেন। এর আগে দৈনিক আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে কয়রা উপজেলার গোলখালী এলাকায় পুলিশ সদস্য হত্যা মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে দৈনিক আমার দেশ ও দৈনিক নয়া দিগন্তে প্রকাশিত সংবাদে ইউপি সদস্য নাসের আলী মোড়লের সংশ্লিষ্টতার কথা উল্লেখ করা হয়। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে কয়রা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, নয়া দিগন্ত সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, প্রকাশক শামসুল হুদা, সাংবাদিক হাসমত আলী, এহতেশামুল হক শাওন, শহিদুল্লাহ শাহিন, এরশাদ আলী ও আব্দুল খালেককে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় চারজন আসামী আদালতে হাজির হয়ে আগেই জামিন নেন। ধার্য তারিখে আদালতে হাজির না হওয়ায় আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, নয়া দিগন্ত সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, প্রকাশক শামসুল হুদা ও সাংবাদিক শাহিদুল্লাহ শাহিনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরওয়ানা জারি করেন আদালত। গ্রেফতারী পরওয়ানাভুক্ত আসামী মাহমুদুর রহমান বুধবার আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানালে আদালত জামিন মঞ্জুর করেন। এরপর মামলার বাদি নাসের আলী মোড়ল মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানালে আদালত তা গ্রহণ করেন। এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম, বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, জাতীয়  প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ, এডভোকেট মাসুদ হোসেন রনি, এডভোকেট নুরুল হাসান রুবা, এডভোকেট মঞ্জুর আহমেদ, অধ্যক্ষ মাযহারুল হান্নান, অধ্যক্ষ তরিকুল ইসলাম, ডা. সেখ আখতার উজ জামান, ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট শেখ আব্দুর রশিদ, উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মোমরেজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন বাবুল, ইঞ্জিনিয়ার কওছার আলী, এডভোকেট অরবিন্দ মন্ডল, এডভোকেট মঞ্জরুল আলম নান্নু, দৈনিক নয়া দিগন্তের খুলনা ব্যুরো প্রধান মো. এরশাদ আলী, দৈনিক আমার দেশ’র খুলনা ব্যুরো প্রধান এহতেশামুল হক শাওন, কয়রা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সদর উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক রিয়াছাদ আলী, সাবেক সভাপতি হুমায়ুন কবীর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনু প্রমুখ। 

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের গোলখালি গ্রামে জনতা পুলিশ সংঘর্ষে একজন পুলিশ কনষ্টেবল নিহত হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলার বাদি নাসের আলী ও তার ভাই আছের আলী মোড়লকে জড়িয়ে দৈনিক আমার দেশ ও নয়াদিগন্তসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। তার প্রেক্ষিতে নাসের আলী মোড়ল বাদী হয়ে কয়রা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আমার দেশ ও নয়াদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদকসহ ৮ জনকে আসামী করে মানহানি মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ তিন বছর পর গত ৮ মার্চ মামলার ৪ জন আসামী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর পূর্বক মামলাটি খারিজ করে দেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ