ঢাকা, বৃহস্পতিবার 09 March 2017, ২৫ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

উৎপাদন ব্যয় বেড়েছে ॥ রফতানিতে হয়রানি বড় বড় গ্রুপের অনেক ইউনিট বন্ধ

 

মোঃ আল আমিন, মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা : মাধবদীর বিস্তৃর্ণ এলাকায় প্রতিষ্ঠিত শিল্পাঞ্চলে রফতানি যোগ্য কাপড় উৎপাদন ও তৈরি পোশাক খাতে উৎপাদন ব্যয় বেড়েছে অনেক। বাড়েনি বিপণন ও রফতানির সুযোগ বরং বিভিন্ন ক্ষেত্রে নানা সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতায় বড় বড় গ্রুপের অনেক ইউনিট ইতোমধ্যেই বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হাজার হাজার শ্রমিক-কর্মচারী বেকার হয়ে পড়েছে। বৃহৎ এ শিল্পাঞ্চলে অস্থিরতার কারণে সব ধরনের ব্যবসায়ে ধ্বস নেমেছে। এক পরিসংখ্যানে দেখাযায় গ্যাস, বিদ্যুৎ, কাঁচামালের মূল্যবৃদ্ধি, রফতানির ক্ষেত্রে কোটা সংকোচন ও জাহাজী করণে নানা সমস্যা ও হয়রানিতে দেশের বাইরে তৈরি পোশাক ও কাপড় পাঠাতেও বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বেশ ক’টি রফতানিকারক ফ্যাক্টরির কর্তৃপক্ষ। ফলে মাধবদীর বড় বড় নামী দামী গ্রুপ অব কোম্পানি সহ বড় বড় কারখানার মিল মালিক শ্রমিকদের বিল পরিশোধ করতে না পেরে অনেক ইউনিট বন্ধ করে দিয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে দেখা গেছে মাধবদীর জজ ভূঁইয়া গ্রুপের ও ভগিরথপুর এলাকার হাজেরা টেক্সটাল মিলের শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকা সিলেট মহা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনে নেমে আসে। পরে মাধবদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের সান্তনা দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এতে শিল্পাঞ্চল মাধবদীর বিশাল বেকার শ্রমজীবী মানুষ প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করতে মার্কেটে না আসায় সব ধরনের ব্যবসায়ই অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। গত মঙ্গলবার মাধবদীর স্কুল মার্কেট, রাইনওকে মার্কেট, সোনার বাংলা সমবায় মার্কেটসহ বাজারের খুচরা দোকানগুলোতে ঘুরে দেখাগেছে অনেক দোকানী বসে বসে অবসর সময় কাটাচ্ছেন। কয়েকজন দোকান মালিক জানান ৩/৪ মাস যাবৎ বিদ্যুৎ বিল ও কর্মচারী বিল দেয়ার মতো বিক্রি হয়না ব্যবসা হবে কোথা থেকে? শেখেরচর বাবুরহাঠের পাইকারী কাপড় ব্যবসায়ী মোঃ ফারুক মিয়া জানান শেখেরচর হাঠে সপ্তাহের ৩ দিন ব্যবসা করতে গিয়ে প্রতি সপ্তাহে আমার বাড়ি থেকে ১৫/২০ হাজার টাকা নিয়ে কর্মচারীদের বেতন, বিদ্যুৎ বিল দিতে হচ্ছে ১ টাকাও বিক্রি হচ্ছে না। 

শুধু পোশাক নয় মুদি মনোহরি থেকে শুরু করে সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সহ সব ধরনের ব্যবসায়েই মারাত্মক মন্দাভাব অবস্থা বিরাজ করছে। এখানে পাওয়ারলুম, গার্মেন্টস সেক্টরে অচলাবস্থার সৃষ্টি হলে এর প্রভাব পড়ে সব কিছুতে। মাধবদীর আলম টেক্সটাইলের দায়িত্বশীল কর্মকর্তা আবুল মিয়া জানান এ অবস্থা দীর্ঘায়িত হলে শুধু শ্রমিক বেকার নয় মালিক পক্ষও ব্যাংক ঋণের বিশাল চাপে বাধ্য হয়েই কারখানা দেউলিয়া ঘোষণা করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ