ঢাকা, বৃহস্পতিবার 09 March 2017, ২৫ ফাল্গুন ১৪২৩, ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

উ. কোরীয় পরমাণু পরীক্ষা বন্ধের আহ্বান চীনের

৮ মার্চ, বিবিসি/দ্য জাপান টাইমস/দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট : ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক প্রযুক্তির পরীক্ষা বন্ধ করতে উত্তর কোরিয়াকে আহ্বান জানিয়েছে চীন। তবে এর নেপথ্যে যুক্তরাষ্ট্র আর দক্ষিণ কোরিয়াকেই দায়ী করেছে দেশটি।
উত্তর কোরিয়ার ধারাবাহিক চারটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক মহলে সৃষ্ট উদ্বেগের পরিপ্রেক্ষিতে  চীন এ আহ্বান জানিয়েছে। তবে এজন্য বিরোধীদেরও ভূমিকা নিতে হবে মনে করে দেশটি। সংকট নিরসনে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রকে যৌথ সামরিক মহড়া বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেছেন, এর বিনিময়ে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের উচিত যৌথ সামরিক মহড়া বন্ধ করা, কারণ এটি উত্তর কোরিয়াকে ক্ষুব্ধ করে তুলেছে।
জাপানে অবস্থিত মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে হামলার প্রস্তুতি হিসেবে জাপান অভিমুখে সোমবার পরীক্ষামূলকভাবে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের দাবি করে উত্তর কোরিয়া। পিয়ংইয়ংয়ের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে অবিলম্বে দক্ষিণ কোরিয়ায় থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হবে বলে হোয়াইট হাউসের দেওয়া ঘোষণার পরপরই উ কোরিয়া ওই দাবি তোলে। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ মঙ্গলবার জানিয়েছে, জাপানে অবস্থিত মার্কিন সেনা ঘাঁটিগুলোতে হামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত উত্তর কোরিয়ার একটি সেনা ইউনিট সোমবার জাপান সাগরে চারটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। দেশটির নেতা কিম জং-উন ব্যক্তিগতভাবে এ পরীক্ষা তত্ত্বাবধান করেছেন। কোরীয় উপদ্বীপে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়ার সম্ভাব্য হুমকি মোকাবিলায় এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের দাবি করেছে পিয়ংইয়ং। ওই মহড়াকে উত্তর কোরিয়ায় হামলার প্রস্তুতি বলে মনে করছে দেশটি। এদিকে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সিন স্পাইসার সোমবারের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে  উত্তর কোরিয়ার ‘উস্কানিমূলক আচরণের’ পুনরাবৃত্তি বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, এ ধরনের হুমকি প্রতিহত করার উদ্দেশ্যেই দক্ষিণ কোরিয়ায় ‘থাড’ মোতায়েন করা হবে।
দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক সূত্র জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার চীন সীমান্তের নিকটবর্তী তংচ্যাং-রি অঞ্চল থেকে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো নিক্ষেপ করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার বার্তা সংস্থা ইওনহ্যাপ জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রগুলো সম্ভবত আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র; যা যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখ-ে আঘাত হানতে সক্ষম। মূলত এরপরই চীনের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া উপেক্ষা করে দক্ষিণ কোরিযায ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন শুরু করে মার্কিন সামরিক বাহিনী। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়, উত্তর কোরিযার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকি মোকাবেলা করার উদ্দেশ্যেই স্থাপন করা হচ্ছে টার্মিনাল হাই অ্যালটিচিউড এরিযা ডিফেন্স সিস্টেম (থাড) নামের এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। তবে এতে ইতোমধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। তারা এটাকে এশীয় অঞ্চলে জোরপূর্বক যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ক্ষমতা বৃদ্ধির একটি অংশ হিসেবে বিবেচনা করছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ