ঢাকা, শুক্রবার 10 March 2017, ২৬ ফাল্গুন ১৪২৩, ১০ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

তৈরি পোশাক খাতকে এগিয়ে নিতে শ্রমিক-মালিক একযোগে কাজ করতে হবে -বার্নিকাট

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে আওয়াজ ফাউন্ডেশন আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া স্টিফেন ব্লুম বার্নিকাট --সংগ্রাম

 

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতকে আরো এগিয়ে নিতে শ্রমিক, কর্মকর্তা, মালিক এমনকি ক্রেতাদেরও একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট। 

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে ইউএসএইডের সহায়তায় পরিচালিত পোশাক খাতের উন্নয়নের কাজ করা তিনটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন শেষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ আহ্বান জানান বার্নিকাট। সাংবাদিক সম্মেলনে উন্নয়ন সংস্থা সলিডারিটি সেন্টারের সিপিডি এলানজো গ্লেন সুজান এবং আওয়াজ ফাউন্ডেশনের পরিচালক নাজমা আক্তার বক্তব্য দেন। এ দুটি প্রতিষ্ঠান ছাড়াও পিসিডব্লিউএস নামের আরেকটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক প্রস্তুতকারক দেশ এবং আমেরিকার সবচেয়ে বড় সরবরাহকারী। বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের বন্ধু হিসেবে আমেরিকা বাংলাদেশের এ খাতকে আরো শক্তিশালী এবং সফল দেখতে চায়। এটি করতে হলে এ খাতের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিক, কর্মকর্তা, মালিক ও বিদেশী ক্রেতাদের একযোগে কাজ করতে হবে। সরকারিভাবেও সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, প্রতিটি কারখানায় কর্মকর্তাদের সঙ্গে শ্রমিকদের কথা বলার সুযোগ থাকা দরকার। শ্রমিকদেরও তাদের অধিকার এবং দায়িত্ব জানা দরকার।

তিনি বলেন, আমি অনেক মালিকের সঙ্গে কথা বলেছি। রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর শ্রমিকদের নিরাপত্তা বেড়েছে। কারখানাগুলো এজন্য কাজ করেছে। শ্রমিকদের কর্ম পরিবেশ নিরাপদ করতে এদেশের পোশাক মালিকদের ইচ্ছার ঘাটতি নেই। শ্রমিকদেরও এজন্য এগিয়ে আসতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে বার্নিকাট বলেন, পোশাকের গুণগত মান এবং কর্ম পরিবেশের উন্নয়ন হলে ক্রেতাদের সঙ্গে দর কষাকষির সুযোগ তৈরি হবে। তখন ক্রেতারা ভালো দাম না দিয়ে কাজ করিয়ে নিতে পারবেন না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ