ঢাকা, শুক্রবার 10 March 2017, ২৬ ফাল্গুন ১৪২৩, ১০ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ডিআইজি প্রিজন ও জেল সুপারকে ফের হাজিরের নির্দেশ

 

স্টাফ রিপোর্টার : বিনা বিচারে আটক আসামীকে ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে আদালতে হাজির করার ঘটনায় কারা উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি প্রিজন) মো. তৌহিদুল ইসলাম ও ঢাকার জ্যেষ্ঠ জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবিরকে পুনরায় আদালতে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলেছেন হাইকোর্ট। আগামী ১৩ মার্চ এ বিষয়ে শুনানি হবে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতের আগের দেয়া আদেশ অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার ব্যাখ্যা দেয়ার দিন ধার্য় থাকলেও বিদেশে থাকায় কারা উপমহাপরিদর্শক মো. তৌহিদুল ইসলাম হাজির হননি। তবে জ্যেষ্ঠ জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির লিখিত ব্যাখ্যা দিয়েছেন। আগামী ১৩ মার্চ পুনরায় তাদের দুজনকে হাজির হতে বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুটি এটর্নি জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন । 

লিখিত ব্যাখ্যায় জ্যেষ্ঠ জেল সুপার বলেছেন, চার আসামীর সবাই জেএমবির সদস্য হওয়ায় নিরাপত্তার স্বার্থে তাদেরকে ডাণ্ডাবেড়ি পরানো হয়েছিল।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি এ ঘটনার ব্যাখ্যা দিতে ঢাকার কারা উপমহাপরিদর্শক মো. তৌহিদুল ইসলাম ও জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবিরকে তলব করেছিলেন হাইকোর্ট। ৯ মার্চ তাদের হাইকোর্টে হাজির হয়ে ব্যাখা দিতে বলা হয়। 

গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিনা বিচারে কারাগারে থাকা ১০ আসামীর জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ২৩ ফেব্রুয়ারি তাদের হাজির করার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান ও বিচারপতি এস এইচ মো. নূরুল হুদা জায়গীরদারের হাইকোর্ট বেঞ্চ। ওই দিন ১০ আসামীকে পূর্বনির্দেশনা অনুযায়ী আদালতে হাজির করা হয়। এর মধ্যে হাবিবুর রহমান ওরফে ইসমাইল, মনিরুজ্জামান ওরফে মুন্না, নাসির উদ্দিন ও গিয়াস উদ্দিনকে ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে আনা হয়। এই চারজনকে ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে হাজির করার ঘটনায় ডিআইজি প্রিজনকে ৯ মার্চ উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। কিন্তু এরই মধ্যে ওই বেঞ্চের এখতিয়ার পরিবর্তন হওয়ায় মামলাটি বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের বেঞ্চে শুনানির জন্য কার্যতালিকায় আসে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ