ঢাকা, শনিবার 11 March 2017, ২৭ ফাল্গুন ১৪২৩, ১১ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্লাটিনাম জুট মিলের প্রকল্প প্রধানসহ তিন কর্মকর্তা বরখাস্ত

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগরীর খালিশপুরস্থ প্লাটিনাম জুট মিলের প্রকল্প প্রধান বনিজ উদ্দিন মিঞাসহ তিন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিজেএমসি থেকে প্রেরিত ইমেইল বার্তায় এ তথ্য জানা গেছে। এ ঘটনার তদন্তে গঠন করা হয়েছে তিন সদস্যের কমিটি। এদিকে মিলের উপ-মহাব্যবস্থাপক (উৎপাদন) তোফায়েল আহমেদকে ভারপ্রাপ্ত প্রকল্প প্রধানের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সাময়িক বরখাস্ত হওয়া অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন মিলের হিসাব বিভাগীয় প্রধান মো. রইস উদ্দিন আহমেদ ও সহকারী হিসাব কর্মকর্তা (ক্যাশ) আবুল খায়ের।

শ্রমিকরা জানায়, ২০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতার টাকা বিতরণকালে মিলের প্রত্যেক শ্রমিকের কাছ থেকে একশ’ টাকা করে কেটে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। মিলের প্রকল্প প্রধানের অনুমতি ছাড়াই হিসাব বিভাগীয় প্রধান মো. রইস উদ্দিন আহমেদের মওখিক নির্দেশে এ টাকা কেটে নেয়া হয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। পরে বিজেএমসির চাপে সে টাকা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ফেরত দেয়া হয়। তবে মিলের প্রকল্প প্রধান ও সহকারী হিসাব কর্মকর্তাকে অহেতুক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে সাধারণ শ্রমিকরা জানান। এ নিয়ে শ্রমিকরাও হতবাক হয়েছেন। এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করা হলে প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসবে বলে জানা যায়।

এ ঘটনা তদন্ত জন্য বিজেএমসি পরিচালক (অর্থ) মো. ফেরদৌস আলমকে আহবায়ক এবং আবু সাঈদ মো. মামুনুর রহমান ও আবুল কালাম হাজারীকে সদস্য করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হিসাব বিভাগের প্রধান মো. রইস উদ্দিন আহম্মেদ তার মওখিক নির্দেশে টাকা কেটে নেয়ার কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, টাকা কর্তনের বিষয়টি প্রকল্প প্রধান ও সিবিএ’র নেতাদের আলোচনার মাধ্যমে নির্ধারণ হয়ে থাকে। সেখানে আমি একা নির্দেশ দিতে যাব কেন।

মিলের সিবিএ সভাপতি সরদার মোতাহার উদ্দিন জানান, কড়চা গান আয়োজনের দাবিতে গত ৭ মার্চ  গেট সভায় শ্রমিকদের সমর্থন ও সম্মতি নিয়ে একশ’ টাকা আর্থিক সহযোগিতা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তবে কোন খাত থেকে এ টাকা কাটা হবে সে বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তিনি বলেন, এর আগে যত সিবিএ ছিল তারাও বিভিন্নভাবে শ্রমিকদের কাছ থেকে টাকা কেটেছে। শুনেছি মিলের কর্মকর্তারা এরিয়ার থেকে একশ’ টাকা করে কেটে নেয় এবং পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার আবার ফেরত দিয়েছে। তবে মিলের তিন কর্মকর্তাকে কি কারণে বরখান্ত করা হয়েছে সে বিষয়ে জানা নেই।     

মিলের প্রকল্প প্রধান (সদ্য বরখাস্ত) বনিজ উদ্দিন মিঞা বলেন, গত মঙ্গলবার মিলের সিবিএ নেতারা গেটসভার মাধ্যমে শ্রমিকদের সম্মতি নিয়ে ২০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতার টাকা প্রদান কালে একশ’ টাকা করে কেটে নেয়ার জন্য আমার কাছে এসে প্রস্তাব দেয়। বিষয়টি শুনে আমি তাদের জানিয়েছি বিজেএমসির এমন কোন নির্দেশনা নেই। একই সঙ্গে বিষয়টি লিখিত আকারে বিজেএমসিতে প্রেরণের জন্য বলা হয়। তবে তারা লিখিত দেয়নি। তবে টাকা কাটার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। জানতে পেরে শ্রমিকদের টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ