ঢাকা, শনিবার 11 March 2017, ২৭ ফাল্গুন ১৪২৩, ১১ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ক্ষমতাচ্যুত হলেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট প্রতিবাদে বিক্ষোভ সংঘর্ষ ॥ নিহত ২

১০ মার্চ, রয়টার্স: দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন-হাইকে অভিশংসনের পক্ষে আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে।
দুর্নীতির অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট পার্ককে অভিশংসনের যে সিদ্ধান্ত পার্লামেন্ট দিয়েছিল, গতকাল শুক্রবার তা বহাল রেখে রায় দেয় দেশটির সাংবিধানিক আদালত।
সংবিধান অনুযায়ী,  আগামী ৬০ দিনের মধ্যে নতুন করে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে। গতকাল শুক্রবার রায়ের পর পার্কের কয়েকশ’ সমর্থক পুলিশের বাধা পেরিয়ে আদালত প্রাঙ্গণে প্রবেশের চেষ্টা করে।
পুলিশ জানায়, ওই সময় দুই জনের মৃত্যু হয়।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, নিহতদের মধ্যে একজন বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি, মাথায় আঘাত পাওয়ার পর যাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। দ্বিতীয় ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ কি তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।
এ বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ইয়ুনহাপ নিউজ এজেন্সি জানায়, একটি লাউডস্পিকারের নিচে চাপা পড়ে এক ব্যক্তি নিহত হয়। এছাড়া বয়োজ্যেষ্ঠ আরেক ব্যক্তি পুলিশের ভ্যান থেকে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পাওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।
পার্কের সমর্থকদের বেশির ভাগই দেশটির বয়োজ্যেষ্ঠ রক্ষণশীল নাগরিক।
তবে শুধু বিক্ষোভ নয়, পার্ককের অভিশংসনের পক্ষে রায়ে অনেকে উল্লাসও প্রকাশ করেছেন।
অভিশংসিত হওয়ায় প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়মুক্তির সুযোগও হারাচ্ছেন পার্ক। তাকে এখন দুর্নীতির দায়ে বিচারের মুখোমুখি করা যাবে।
ব্যক্তিগত লাভের লক্ষ্যে এক পুরোনো বন্ধুকে সুবিধা পাইয়ে দিতে রাজনৈতিক ক্ষমতা ও প্রভাব-প্রতিপত্তি ব্যবহার করেছেন এমন অভিযোগে গতবছরের মাঝামাঝি সময়ে সংসদে ও রাজপথে পার্কের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হয়।
একপর্যায়ে তিনি পদত্যাগ করতে চাইলেও বিরোধীরা তার বিরুদ্ধে অভিশংসনের প্রস্তাব আনে। গত বছর ৯ ডিসেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার পার্লামেন্টে ওই প্রস্তাব ২৩৪-৫৬ ভোটে অনুমোদন পায়।
নিজ দলের পার্লামেন্ট সদস্যরাও সেদিন পার্কের অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেন বলে ধারণা করা হয়।
৬৫ বছর বয়সী পার্ক পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে প্রথম নারী, যিনি রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব পেয়েছিলেন।
সায়েনুরু পার্টির এ শীর্ষ নেতা ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ কোরিয়ার একাদশ প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন।
এদিকে প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাই-এর অভিশংসন দ. কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে কোনও প্রভাব ফেলবে না বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। গতকাল শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর এক বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছে তারা। এই ঘোষণার মধ্যদিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বস্তুত উ কোরিয়ার বিরুদ্ধে দ কোরিয়ার প্রতি তাদের সমর্থন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিলো।
মার্কিন সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টের সঙ্গেই কাজ করে যাবে মার্কিন সরকার। কেবল তাই নয়, পরবর্তীতে যে ব্যক্তিই প্রেসিডেন্ট হোন না কেন এ সম্পর্ক অপরিবর্তিত থাকবে বলেও জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।
ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার সম্পর্কের বিষয়টি দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণায় আধিপত্য বিস্তার করবে। উত্তর কোরিয়ার মিসাইল ও পারমাণবিক পরীক্ষার জবাবে দক্ষিণ কোরিয়া এ মাসে একটি মার্কিন থাড মিসাইল প্রতিরোধ ব্যবস্থা স্থাপন করেছে।  আর এর তুমুল বিরোধিতা করেছে চীন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ