ঢাকা, রোববার 12 March 2017, ২৮ ফাল্গুন ১৪২৩, ১২ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রথম টেস্টেই বড় হার বাংলাদেশের

স্পোর্টস রিপোর্টার : শ্রীলংকা সফরে হার দিয়েই শুরু হলো বাংলাদেশের। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ হেরেছে ২৫৯ রানের বড় ব্যবধানে। ফলে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে প্রথম টেস্টে জিতে শ্রীলংকা সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে  গেল। গল টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের জন্য টার্গেট ছিল ৪৫৭ রান। এই টার্গেট টপকিয়ে টেস্টে জয় পাওয়া সম্ভব ছিলনা বাংলাদেশের জন্য। অবশ্য এটা কেউ আশাও করেনি। তবে বাংলাদেশের সামনে সুযোগ ছিল টেস্টে ড্র করা। আর এটা করতে হলে বাংলাদেশকে পুরো দিন ব্যাটিং করতে হতো। তবে এটা কিন্তু কঠিন ছিলনা টাইগারদের জন্য। কিন্তু সেখানেই বাংলাদেশ চরম ভাবে ব্যর্থ হয়েছে। নিজেদের অসহায়ত্ব তুলে ধরে অল আউট হয়েছে মাত্র ১৯৭ রানে। ফলে প্রথম টেস্টেই ২৫৯ রানের বড় ব্যবধানে হার দিয়ে শুরু করতে হয়েছে।
প্রথম টেস্টে এক হেরাথের কাছেই টিকতে পারেনি মুশফিকরা। হেরাথ স্পিন জাদুতে একাই বাংলাদেশকে আটকে ফেলেছে। আর গতকাল শেষদিন দুই সেশনেই প্রথম ঘণ্টায় দাপট দেখাল লংকান বোলাররা। যেখানে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথ। তার স্পিনে মাত্র ১৯৭ রানে গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস। ৪৫৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ দিনের শেষ বিকেলে বাংলাদেশ কোন উইকেট না হারিয়ে করেছিল ৬৭ রান। দলের পক্ষে সৌম্য সরকার ৫৩ রানে আর তামিম ১৩ রানের ব্যাটিংয়ে ছিলেন। ফলে শেষ দিনে হাতে ১০ উইকেট নিয়ে খেলতে নামায় অন্তুত হার এড়িয়ে ড্র করার সম্ভাবনা ছিল বাংলাদেশের সামনে। কিন্তু শেষ দিনেই বাংলাদেশ খেলল খুব বাজে একটা ইনিংস। গতকাল দিনের প্রথম ঘণ্টায় ৩৭ রানে প্রথম পাঁচ উইকেট হারিযে ম্যাচ থেকে দিনের শুরুতেই ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। তারপরও মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের লড়াইয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেস্টা করে সঢরকারীরা। কিন্তু দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ঘণ্টায় আরেকটি বিপর্যয়। এবার ৩৯ রানের মধ্যে শেষ ৫ উইকেট হারায় মুশফিকরা। আর অল আউট হয় দু-শত রানের আগে ১৯৭ রানে।  গতকাল দলের পক্ষে কোন ব্যাসম্যানই ভালো করতে পারেনি। আগের দিনে করা ৫৩ রানে অপরাজিত থাকাা সৌম্য সরকারের উপর শেষ দিনের ভরসাটা ছিল বেশি। তিন্তু দলের বিপর্যয় তাকে দিয়েই শুরু। ব্যাট করতে নেমে শুধুমাত্র একটি বলই  খেলেছেন। আর কোন রান করতে না পেরে আউট হয়েছেন আগের দিনে করা ৫৩ রানেই। আসেলা গুনারত্নের পেস বুঝতে না পেরে বোল্ড হন ওপেনার সৌম্য। স্পিন সহায়ক উইকেটে টিকতে পারেননি মুমিনুল হক ও তামিম ইকবালও। মাত্র ৫ রানে মুমিনুল এলবি আউট করেন দিলরুয়ান পেরেরা। আর ১৯ রানে গুনারতেœকে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন তামিম। গতকাল তামিম যোগ করতে পেরেছেন ৬ রান। অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথের স্পিন জাদুতে সাকিব ৮ রানে ক্যাচ তুলে দেন দিমুথ করুনারতেœর হাতে। একই ওভারে মাহমুদউল্লাহ দ্বিতীয় বলে এলবি আউট হন রানের খাতা খোলার আগেই। ফলে ১০৪ রানের মধ্যে প্রথম ৫ উইকেট হারানো দলের সামনে টিতে থেকে ড্র করারও সুযোগ ছিলনা। এর পরও দলকে কিছুটা আশা দেখিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস জুটি। দুইজনে লাঞ্চে যাওয়ার আগে পর্যন্ত প্রতিরোধ গড়েন অর্ধশতাধিক রানের জুটিতে। কিন্তু দ্বিতীয় সেশনের দ্বিতীয় বলেই তাদের ৫৪ রানের জুটিটি ভাঙেন লাকশান সান্দাকান। ৩৪ রানে তিনি ফিরান মুশফিককে। তিন ওভার পর হেরাথের শিকার হন লিটন। ৩৫ রানে উপুল থারাঙ্গাকে ক্যাচ দেন তিনি। আর এ উইকেটটি নিয়ে টেস্ট ইতিহাসে সবচেয়ে সফল বাঁহাতি স্পিনারের মর্যাদা পান হেরাথ। ৩৬৩তম উইকেটটি নিয়ে শীর্ষ বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টরিকে টপকে যান তিনি। হেরাথের এখানেই শেষ নয়। হেরাথের শিকার হন বাংলাদেশের টেল এন্ডাররাও। হেরাথের পরপর দুই ওভারে তাসকিন আহমেদকে ৫ রানে ফিরানোর পর রানের খাতা খুলার আগেই মোস্তাফিজকে ফিরান তিনি। আর এতেই ক্যারিয়ারের ২৯তম বার এক ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব গড়েন হেরাথ। এর পর মিরাজকে ২৮ রানে বিদায় করে শ্রীলংকার জয় নিশ্চিত করেন অধিনায়ক হেরাথ। আর  ৫৯ রান দিয়ে তিনি নেন ৬ উইকেট। বিজয়ী দলের পক্ষে ম্যাচ সেরার পুরস্কারটি পেয়েছেন প্রথম ইনিংসে ১৯৪ রানের ইনিংস খেলা স্বাগতিক দলের কুশাল মেন্ডিস। এর আগে শ্রীলংকা টস জিতে প্রথম ইনিংসে করে ৪৯৪ রান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৯৪ রান করেন কুশাল মেন্ডিস। এছাড়া গুনারতেœর ৮৫, ডিকওয়েলার ৭৫ এবং দিলরুয়ান পেরেরার ৫১ রান  করেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩১২ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। ফলে প্রথম ইনিংসে ১৮২ রানের লিড পায় শ্রীলংকা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে উপল থারাঙ্গার সেঞ্চুরিতে চতুর্থ দিনের দ্বিতীয় সেশন শেষ হওয়ার আগে ৬ উইকেট হারিয়ে তারা ইনিংস ঘোষণা করে ২৭৪ রানে। আর বাংলাদেশের সামনে টার্গেট দাঁড়িয়েছে ৪৫৭ রান।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শ্রীলংকা- ৪৯৪/১০ ও ২৭৪/৬ ডিক্লেয়ার
বাংলাদেশ- ৩১২/১০ ও ৬০.২ ওভারে ১৯৭/১০ (সৌম্য ৫৩, মুশফিক ৩৪, লিটন ৩৫;  হেরাথ ৬/৫৯, দিলরুয়ান ২/৬৬)
ফল- শ্রীলংকা ২৫৯ রানে জয়ী
ম্যাচসেরা- কুশল মেন্ডিস
সিরিজ- দুই ম্যাচের সিরিজ ১-০ তে এগিয়ে শ্রীলংকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ